১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, মঙ্গলবার

বিএনপি সংলাপের নামে ছলনা করছে : ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৯, ২০১৮, ১১:৩০ অপরাহ্ণ

বাসস : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির সংলাপের প্রতি কোন আগ্রহ নেই এবং তারা সংলাপের নামে ছলনা করছে।

বিএনপির সঙ্গে সকল সংলাপের ফল শূন্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তারা (বিএনপি) চায় সংঘাত। তারা বার বার সংঘাতের উস্কানী দিচ্ছে। বিএনপি ছদ্মবেশী বিধ্বংসী একটি রাজনৈতিক দল। তারা পারে না হেন কোন কাজ নেই।’

সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, তারা কোটা আন্দোলনের ওপর ভর করেছিল। সে আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের আন্দোলনের ওপর সওয়ার হতে চেয়েছিল। সেখানেও তারা ব্যর্থ হয়েছে।

ওবায়দুল কাদের আজ বিকেলে বাংলাদেশ সচিবালয়ের বহুমুখী সমবায় সমিতি চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সচিবালয় কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

ঐক্য পরিষদের সভাপতি বদরুল হায়দারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক, শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কেরামত আলী, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহম্মেদ খান, আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব এ এস এস এম জহিরুল হক, বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের রেক্টর মো. মোশাররফ হোসেন এবং ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহ কামাল।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর খুনীদেরকে ‘ওয়েল ডান’ কে বলেছিল, বঙ্গবন্ধুর খুনীদের বিদেশে পালিয়ে যেতে, দূতাবাসে চাকুরী দিয়ে কে পুরস্কৃত করেছিল?

ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারী করে কে বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচারের পথ বন্ধ করেছিল, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যার জন্য গ্রেনেড হামলা কারা চালিয়েছিল – সেই প্রশ্নও করেন কাদের। তিনি বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের পুরস্কৃত এবং বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচারের পথ বন্ধ করেছিল। আর তার পুত্র তারেক রহমান লন্ডনে বসে বঙ্গবন্ধুর প্রতি সেই আদর্শের পুনরাবৃত্তি করছে।

সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, যারা সংলাপের কথা বলেন, তাদের এ কথাগুলো স্মরণ করে দিতে চাই। আর বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে আওয়ামী লীগকে সংলাপের আহবান জানাত কিনা সে কথাও তাদের কাছে জানতে চাই।

সভা শেষে বঙ্গবন্ধুসহ ১৫ আগস্টের সকল শহীদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয় এবং তবারক বিতরণ করা হয়।