১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, সোমবার

‘বিএনপি নেতা ও ড. কামালের ভাষার সঙ্গে গুণ্ডাদের ভাষার পার্থক্য নেই’

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, আগস্ট ১০, ২০১৮, ৪:১১ অপরাহ্ণ

ঢাকা : বিএনপি নেতৃবৃন্দ এবং বিশিষ্ট আইনজীবী ড. কামাল হোসেনের ভাষা আর গুণ্ডাদের অ্যাকশনের ভাষার মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ অাওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং দলের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ এমপি।

শুক্রবার (১০ অাগস্ট) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পরিষদ আয়োজিত ‘বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এর ৮৮তম জন্মবার্ষিকী’ উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহ নিয়ে ড. কামাল হোসেনের বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে তিনি বলেন, তিনি বলেছেন গুণ্ডাতন্ত্র। হ্যাঁ, তিনি এ কথাটি সঠিক বলেছেন। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্কুল-কলেজের ড্রেস পরিয়ে কারা বিএনপি জামাতের গুণ্ডাদের নামিয়েছিলেন, কারা স্কুলের ব্যাগের মধ্যে চাপাতি এবং পাথর রেখেছিলেন, কারা সাংবাদিকদের উপর হামলা এবং হেনস্তা করেছেন তা এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেরিয়ে আসছে। তিনি হয়তো সেগুলোর কথাই বলেছেন। তাই উনার ভাষার মধ্যে আর গুন্ডাদের শারীরিক অ্যাকশনের ভাষার মধ্যে আমি পার্থক্য খুঁজে পাই না। এটি অত্যন্ত হতাশাব্যঞ্জক। কারণ ড. কামাল হোসেনকে এতদিন একজন ভদ্রলোক হিসেবেই জানতাম।

‘শিক্ষার্থীদের অান্দোলন কখনো বন্ধ করা যাবে না’ বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভীর সাম্প্রতিক এমন বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ বলেন, শিক্ষার্থীরা ঘরে ফিরে গেছে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাদের সমস্ত দাবী মেনে নেওয়ায় তারা আনন্দ মিছিল করেছে। তারা বুঝতে পেরেছে তাদের মধ্যে বিএনপি জামাতের ক্যাডাররা (গুন্ডা) প্রবেশ করেছে। তারা এটাও বুঝতে পেরেছে এই ক্যাডারদের(গুন্ডা) কারা নামিয়েছে।

‘সাইরেন বেজে গেছে’ বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভীর সাম্প্রতিক এমন বক্তব্যেরও কঠোর সমালোচনা করেন এই নেতা। তিনি বলেন, সাইরেন বেজেছে ১/১১ কুশীলব এবং ষড়যন্ত্রকারীদের জন্যে। এই সাইরেন জনগণ দিয়েছে তাদেরকে চিরতরে নির্মূল করার জন্যে।

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৮তম জন্মবার্ষিকীতে তার বিদেহী আত্মার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে সাবেক বন ও পরিবেশমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বঙ্গবন্ধু কারাগারে থাকা অবস্থায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব শুধু সংসারকে অাগলে রেখেছেন তা নয়, আওয়ামী লীগকেও আগলে রেখেছিলেন। সেই জন্য আজকে বঙ্গবন্ধুর যত অর্জন তার সাথে যে নামটি ইতিহাসের পাতায় জুড়ে অাছে সেটি হচ্ছে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব।

আওয়ামী লীগের সমস্ত পর্যায়ের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যারা এবার ষড়যন্ত্র করে ব্যার্থ হয়েছে তারা কিন্তু বসে নাই। রাত-বিরাতে তারা বিভিন্ন জায়গায় বসছেন। সুতরাং ষড়যন্ত্রকারীদের ব্যাপারে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলির সদস্য ও বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইউছুফ হোসেন হুমায়ুন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শ.ম রেজাউল করিম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান, আওয়ামী লীগ নেতা বলরাম পোদ্দার প্রমুখ।

একুশে/প্রেসবিজ্ঞপ্তি/এটি