১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, সোমবার

নেছার পেলেন সহযোগিতা, অজ্ঞাতরা পেলো ওষুধ

প্রকাশিতঃ সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৮, ১০:২৩ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : চমেকে অজ্ঞাতের কথা উঠলেই সবার আগে যার নাম শোনা যায় তিনি হলেন নেছার। স্বজনহীন অজ্ঞাতদের সাহায্যে কেউ যখন আসে না তখন তিনিই নিজ দায়িত্বে সেসব রোগীদের স্বজনের ভূমিকা পালনে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

আর তারই ধারাবাহিতায় রোগীদের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে যোগ হয়েছে ভিন্ন মাত্রার এক সেবা। এই সেবার মাধ্যমে অজ্ঞাত রোগীরা বিভিন্ন ওয়ার্ডে জরুরি ওষুধসহ চিকিৎসাসেবার প্রয়োজনীয় সামগ্রী পাবেন বিনামূল্যে।

সোমবার দুপুরে চমেকের নিউরোসার্জারি বিভাগে এ সেবার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয় এবং উদ্বোধন করেন চমেকের উপাচার্য অধ্যাপক ডাঃ কনক কান্তি বড়ুয়া।
এ ব্যপারে সাইফুল ইসলাম নেছার একুশে পত্রিকাকে বলেন, দীর্ঘদিন থেকেই বিভিন্ন জনের কাছে ধর্না দিয়েছি অজ্ঞাতদের চিকিৎসার জন্য, কেউ কেউ সাহায্য করলেও অনেকে খালি হাতেই ফিরিয়েছেন। কিন্তু আমি হাল ছাড়িনি। আর এর ফল আজকে রোগীদের জন্য বিনামূল্যে ওষুধ। শুরু হল আমার নতুন যাত্রা। এ ব্যপারে তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন যারা তাকে সাহায্য করেছেন বিভিন্নভাবে।

তিনি বলেন, আপাতত এখান থেকেই সব ওয়ার্ডের অজ্ঞাতরা চিকিৎসাসামগ্রী পাবেন। কিন্তু কিছুদিন পর হাসপাতালের সব ওয়ার্ডে হবে এমন চিকিৎসা সামগ্রীর শোকেজ। বিভিন্ন ওয়ার্ডে জরুরি ওষুধ, অস্ত্রোপচার সরঞ্জাম ও পরিধেয়-সামগ্রী শোকেসে থাকবে। সেখান থেকে প্রয়োজনীয় ওষুধ নিয়ে দায়িত্বরত চিকিৎসকরা অজ্ঞাত রোগীদের চিকিৎসাসেবা দেবেন।

উদ্বোধনকালে আরো উপস্থিত ছিলেন চমেক হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহসেন উদ্দিন আহম্মেদ, নিউরোসার্জারি বিভাগের প্রধান প্রফেসর নোমান খালিদ চৌধুরী, সহকারী পরিচালক শেখ ফজলে রাব্বী প্রমুখ।

স্পন্সর কোম্পানির প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জুলফার বাংলাদেশের চট্টগ্রামের অঞ্চলের ব্যবস্থাপক ফারুক সরকার, রিগালোর মহাব্যবস্থাপক সাইদুল করিম, পোর্টল্যান্ড গ্রুপের মহাব্যবস্থাপক মিজানুর রাহমান মজুমদার, রোটারি ক্লাব অব মেট্রোপলিটন চট্টগ্রামের প্রেসিডেন্ট কফিল উদ্দিন মাহমুদ, রোটারি ক্লাব অব মহানগরীর প্রেসিডেন্ট রেহেনুমা, কুইক এনার্জির রিগালোর মহা-ব্যবস্থাপক কাউসার চৌধুরী ও পদ্মা ওয়েল ট্যাংকার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ইয়াকুব চৌধুরী।

একুশে/এএইচ/এটি