১৮ অক্টোবর ২০১৮, ২ কার্তিক ১৪২৫, বুধবার

চবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে ফের সংঘর্ষ

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১১, ২০১৮, ৭:২২ অপরাহ্ণ

চবি প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে ফের সংঘর্ষ হয়েছে। বুধবারের সংঘর্ষের জেরে বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টার দিকে ক্যাম্পাসে বিদ্যমান সিএফসি ও বিজয়ের গ্রুপের মধ্যে ফের এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বেলা ১২ টার দিকে সিএফসি গ্রুপের নেতাকর্মীরা সোহরাওয়ার্দী হলে অবস্থানরত বিজয় গ্রুপের নেতাকর্মীদের উপর হামলা করলে তারাও পাল্টা ধাওয়া দেয়। বেলা ১২ টা থেকে দুই গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

পুলিশ উভয় দলের নেতাকর্মীদের লাঠিচার্জ ও ধাওয়া দিলে বিজয় গ্রুপের নেতাকর্মীরা সোহরাওয়ার্দী, আলাওল এবং এফ রহমান হলে অবস্থান নেয়। সিএফসি গ্রুপের নেতাকর্মীরা অবস্থান নেয় শাহ আমানত হলে।

সোহরাওয়ার্দী ও আমানত হলের সামনে পুলিশের কড়া নিরাপত্তায় মাঝেও দুই গ্রুপের নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

বেলা সাড়ে তিনটার দিকে এফ রহমান হলে অবস্থানরত সিএফসির ইয়াছিন রুবেলকে মারধর করে বিজয় গ্রুপের কর্মীরা। এসময় বিজয় গ্রুপের কর্মীরা তার কক্ষ ভাঙচুর করে। এর জের ধরে শহীদ মিনারের দিকে বিজয় গ্রুপের এক কর্মীকে ধাওয়া দেয় সিএফসি কর্মীরা। আব্দুর রব হলে আক্তার ও আবিদ নামে বিজয় গ্রুপের দুই কর্মীকে মারধর করে তারা। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশ স্টাডিস বিভাগের (১৭-১৮) সেশনের শিক্ষার্থী।

পরে বিকেল চারটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর, সহকারি প্রক্টরবৃন্দ এবং হাটাজারী থানা সার্কেলের এসএসপি মাছুম বিল্লাহ এবং ডিবি পুলিশের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের আব্দুর রব হল, শাহ আমানত হল, সোহরাওয়ার্দী হল, এফ রহমান হল এবং আলাওল হলে অভিযান চালায় পুলিশ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, হলে বহিরাগত কেউ আছে কিনা এবং কেউ বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টির পরিকল্পনা করছে কিনা সেজন্য আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে অভিযান চালাই। অভিযানে কাউকে আটক করা না হলেও কিছু রামদা, লাঠি, পাথর ও বোতল উদ্ধার করা হয়েছে।

এ সময় প্রক্টর সাধারণ শিক্ষার্থীদের অনুরোধ জানান, কেউ ক্যাম্পাসে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা কররে প্রসাশনকে যেন অবহিত করা হয়।

একুশে/আইএস/এটি

প্রিন্ট করুন