১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫, মঙ্গলবার

অবরোধের প্রথম দিনে ভোগান্তিতে নগরবাসী

প্রকাশিতঃ রবিবার, অক্টোবর ২৮, ২০১৮, ২:৪৭ অপরাহ্ণ

অবরোধের প্রথম দিনে ভোগান্তিতে নগরবাসী

চট্টগ্রাম :  আট দফা দাবি আদায়ে ডাকা পরিবহন ধর্মঘটের প্রথম দিনে পরিবহন শ্রমিককরা কর্মবিরতি শুরু করেছে। তাদের এই কর্মবিরতিতে সারাদেশের মতো চট্টগ্রামেও ভোগান্তিতে নগরবাসী।

রোববার (২৮ অক্টোবর) সকাল থেকে নগরের ব্যাস্ততম সড়ক গুলোতে ব্যক্তিগত গাড়ি ছাড়া অন্য কোন যাত্রিবাহী গাড়ি চলাচল করেনি। ভোরে দুই একটি বাস চলাচল করলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে তাদের প্রতিবন্ধকতার মধ্যে পড়তে হয়েছে। এছাড়া আগ্রাবাদ, মাইলের মাথা, ক্রসিংয়ে গাড়ি ভাঙচুর করেছে কর্মবিরতি পালনকারি শ্রমিকরা।

এদিকে গণপরিবহন না থাকায় নগরে রিকশার সংখ্যা তুলনামুলকভাবে বেশী চলাচল করছে। দাবি করছে দ্বিগুণভাড়া। অনেকে হেঁটেই গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন।

 

বারিক বিল্ডিং থেকে চকবাজারের উদ্দেশ্যে দু’একটি গাড়ি ছেড়ে আসলেও তাতে উঠার মতো কোনো সুযোগ ছিল না। কিছু সিএনজি অটোরিকশা চললেও গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে কেড়ে নেয়া হচ্ছে চাবি।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়মুখী বাস ছাড়া নগরে আর কোনো বাস চলাচল করতে দেখা যায়নি। কদমতলি নোয়াখালী বাসট্যান্ড থেকে দুরপাল্লার বাস ছেড়ে যায়নি। অলংকার-সিটি গেইট এলাকা থেকে কাউন্টারের কোনো বাস দুরপাল্লায় ছেড়ে যায়নি। রেয়াজউদ্দিন বাজারে সবজির ট্রাকগুলো নগরে প্রবেশ করেনি।

ইপিজেড গার্মেন্টস কর্মী সুলতানা বেগম একুশে পত্রিকাকে জানান, প্রতিদিন সকাল ছয়টায় আমাদের স্টাফ বাস চৌমুহনীতে আসে।কিন্তু আজকে বাস না আসায় অফিসে যেতে বিপাকে পড়তে হয়েছে। রিকশাযোগে যেতে চাইলে চালক দুইশ টাকা দাবি করছে।

অবরোধকারিরা থামিয়ে দিচ্ছে বাস

প্রসঙ্গত ,মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ৮ দফা দাবিগুলোর মধ্যে সড়ক দুর্ঘটনার সব মামলা জামিনযোগ্য করা, শ্রমিকদের অর্থদণ্ড ৫ লাখ টাকার পরিবর্তে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডের বিধান, সড়ক দুর্ঘটনার জটিলতর মামলার তদন্ত কমিটিতে শ্রমিক প্রতিনিধি রাখা, ড্রাইভিং লাইসেন্সের শিক্ষাগত যোগ্যতা অষ্টম শ্রেণির স্থলে পঞ্চম শ্রেণি করা, কাগজপত্র চেকিং এর নামে সড়কে পুলিশের অহেতুক হয়রানি বন্ধ করা, ওয়েট স্কেলে জরিমানার পরিমাণ কমানো ও কারাদণ্ডের বিধান বাতিল ইত্যাদি রয়েছে।

একুশে/এসসি