১৫ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫, বুধবার

আবৃত্তিশিল্পী রণজিৎ রক্ষিত আর নেই, মেয়রের শোক

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, অক্টোবর ৩০, ২০১৮, ২:০৯ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : আবৃত্তিশিল্পী, চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমির সহ-সভাপতি রণজিৎ রক্ষিত আর নেই। মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) দুপুর সোয়া ১২টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই ছেলেসহ অসংখ্য ছাত্র, ভক্ত ও শুভানুধ্যায়ী রেখে গেছেন। তার মৃত্যুতে চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

বোধন আবৃত্তি স্কুলের অধ্যক্ষ রণজিৎ রক্ষিত দীর্ঘদিন চট্টগ্রাম মিউনিসিপ্যাল মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন। তিনি বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের নির্বাহী সদস্যসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত।

গত ২৩ অক্টোবর সন্ধ্যায় আগ্রাবাদে একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিয়ে নিচে নামার সময় অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। এরপর প্রথমে চমেকে পরে মেহেদিবাগের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সর্বশেষ সোমবার (২২ অক্টোবর) তাকে চমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে তিনি আইসিইউতে ছিলেন। তাঁর মস্তিষ্কে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়েছিল।

রণজিৎ রক্ষিতের মরদেহ এমএম আলী সড়কের জেলা শিল্পকলা একাডেমি, চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, চেরাগি পাহাড় চত্বর, মিউনিসিপ্যাল স্কুল ও বাসায় নেওয়া হবে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য। এরপর বলুয়ার দীঘির পাড় স্মশানে দাহ করা হবে।

এদিকে বরেণ্য আবৃত্তিশিল্পী রণজিৎ রক্ষিতের মৃত্যুতে গভীর শোক ও তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। মেয়র তাকে প্রথমসারির সাংস্কৃতিক যোদ্ধা হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

একুশে পত্রিকাকে টেলিফোনে মেয়র বলেন, এ সাংস্কৃতিক যোদ্ধার মৃত্যুতে বাংলাদেশের সংস্কৃতিঙ্গানের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। যা কখনো পূরণ হবার নয়।

মেয়র বলেন, রণজিৎ রক্ষিত ছিলেন মূলক শিক্ষক, মানুষ গড়ার কারিগর। পরবর্তীতে বোধন আবৃত্তি স্কুল প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক অগ্রযাত্রাকে বেগবান করার পাশাপাশি শুদ্ধ পঠন-পাঠন, আবৃত্তি, উপস্থাপনায় একটি সমৃদ্ধ, ঋদ্ধ সমাজ গড়ে তোলার পাশাপাশি তরুণ সমাজকে শুদ্ধ সংস্কৃতিমুখী করতে রণজিৎ রক্ষিত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন।

শুদ্ধ সাংস্কৃতিক সমাজ বিনির্মাণে চট্টগ্রামের মানুষ আজীবন তাঁকে স্মরণ করবে বলে উল্লেখ করেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

একুশে/এটি

একুশে/এটি