১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, মঙ্গলবার

সর্বাধুনিক নিরাপত্তা ব্যবস্থায় থাকতেন শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী রিজোয়ান

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ৮, ২০১৮, ৭:১২ অপরাহ্ণ

রাকীব হামিদ: পুলিশের তালিকায় রেজোয়ান (৫৫) ছিলেন শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী। বৃহস্পতিবার দেশ ছেড়ে পালানোর সময় পুলিশের হাতে ধরা পড়ে।দীর্ঘদিন ধরা ছোঁয়ার বাহিরে থাকা এই শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী থাকতেন সর্বাধুনিক নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে।যার মূল উদ্দেশ্য ছিল পুলিশের চোখকে ফাঁকি দিয়ে নির্বিগ্নে ইয়াবার চালান দেশজুড়ে ছড়িয়ে দেয়া।

চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের হাতে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ ও অভিযানে জানা যায়,দেশের হাতেগোনা কয়েকটি বাড়ির মধ্যে রেজোয়ানের বাড়িটি ছিল সর্বোচ্চ সুরক্ষিত।আধুনিক যন্ত্রপাতির মাধ্যমে বাড়িটিতে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থার বন্দোবস্ত ছিল।বায়েজিদের মোজাফফর নগরে ০৩/০১ সড়কে অবস্থিত ২২৭৭ নং বাড়িটি ২১ টি সিসি ক্যামেরায় সার্বক্ষণিক নজরদারীতে রাখা হত।

জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানা যায়, রিজোয়ান আন্তর্জাতিক মাদক পাচার দলের সক্রিয় সদস্য।তাকে মায়ানমার থেকে ইয়াবার চালান পাঠাতে সহায়তা করতো মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিক আবদুর রহিম।রিজোয়ানের সহায়তায় বাংলাদেশেও যাতায়াত ছিল তার।বাংলাদেশীদের সাথে চেহারায় মিল থাকায় আসা-যাওয়া ছিল সহজ । আর চট্টগ্রামে এলে থাকতেন রিজোয়ানের সেই সুরক্ষিত বাসায়।

গত ৪ মে নগরের হালিশহরের একটি বাড়ি থেকে ১৩ লাখ পিস ইয়াবাসহ রাশেদ মুন্না ও মো. আশরাফ নামে দুইভাইকে গ্রেফতার করে নগর গোয়েন্দা পুলিশের বন্দর বিভাগ। আব্দুর রহিমের শ্যালক রাশেদ মুন্না ইয়াবার মূল্য নির্ধারণের দায়িত্বে ছিলেন। ইয়াবা বিক্রির অর্থ সংগ্রহ করে করে মায়ানমারে পাচারের কাজ করত মুন্না।

জানা গেছে, বাংলাদেশের ইতিহাসে পুলিশের অভিযানে ইয়াবার বড় চালান ছিল ১৩ লক্ষ  পিস ইয়াবা। যার মূল হোতা ছিলেন আব্দুর রহিম।মূলত ইয়াবার এই বড় চালানের মাদকের প্রধান বিনিয়োগকারী সাইফুল করিম। আর এই সাইফুল করিমের আন্ডারকভারে রিজোয়ান এতদিন ছিলেন বলে একুশে পত্রিকাকে জানান অভিযানের নেতৃত্ব দেয়া সহকারী পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা বিভাগ) মইনুল ইসলাম। তিনি বলেন, সাইফুল করিম ইয়াবা ব্যবসায়ীদের মধ্যে এক নাম্বারে। তাকে ধরার প্রচেষ্টা চলছে। তবে তার সহযোগী শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী রিজোয়ানের বাড়ির নিরাপত্তা ব্যবস্থা অবাক করার মতো। দেশের হাতেগোনা কয়েকজনের এমন বাড়ি রয়েছে। ইতোমধ্যে তার নামে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়েছে।

একুশে/আরএইচ/এটি