১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার

করের পরিধি বাড়ানোর তাগিদ মেয়র নাছিরের

প্রকাশিতঃ সোমবার, নভেম্বর ১২, ২০১৮, ১১:২৪ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম: অর্থনৈতিকভাবে দেশকে সমৃদ্ধশালী করতে হলে করের পরিধি বাড়াতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রামের সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

চট্টগ্রাম কর কমিশনের উদ্যোগে সোমবার সকালে নগরীর জিইসি কনভেনশন সেন্টারে বৃহত্তর চট্টগ্রামের ৩৯ জন সর্বোচ্চ ও দীর্ঘ মেয়াদী করদাতাদের সম্মাননা প্রদান করা হয়। সম্মাননা প্রাপ্তদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, অর্থনীতির মূল ভিত্তি হচ্ছে কর। অর্থনৈতিকভাবে দেশকে সমৃদ্ধশালী করতে হলে করের পরিধি বাড়াতে হবে। আয়কর ছাড়া একটি দেশে উন্ন্য়ন সাধিত হয় না। দিন দিন বাজেটের আকার বাড়ছে। বঙ্গবন্ধু ১৯৭২-৭৩ অর্থ বছরে বাজেট দিয়েছিল ৭৮৬ কোটি টাকা। আর সেই বাজেট ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা। এই বাজেট তখনই বাস্তবায়িত হবে যদি আমরা সকলে মিলে কর পরিশোধ করি।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে বিভিন্ন সাহায্য সহযোগিতা দিচ্ছেন, সামাজিক নিরাপত্তা দিচ্ছেন। এই সহযোগিতা, নিরাপত্তার জন্য টাকা দিচ্ছেন। এই টাকা সবই করদাতাদের দেয়া টাকা।

কর আদায়ে সহনশীলতা হওয়ার জন্য আয়কর বিভাগকে পরামর্শ দিয়ে মেয়র বলেন, আয়কর সেবাকে যেন আরো বন্ধু সুলভ করা হয়। এতে করে আরো বেশি সংখ্যক মানুষকে আয় করের আওতায় আনা সম্ভব হবে।

আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, করদাতাদের সম্মাননা দিয়ে কর বিভাগ এক অন্যান্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এতে করে অন্যরা অনুপ্রাণিত হবে, সচেতনতা সৃষ্টি হবে। তাই বেশী বেশী করে করমেলা আয়োজনের পরামর্শ দেন মেয়র।

অনুষ্ঠানে সম্মাননা প্রাপ্তদের মধ্যে তাদের অনুভুতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন শিল্পপতি সালাউদ্দিন কাশেম খান, দিদারুল আলম ও অসিত কুমার সাহা।

সভায় সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম কর অঞ্চল ১ এর কর কমিশনার ও মেলার সমন্বয়ক মো. মোজাহের হোসেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য রওশন আরা আকতার, কাষ্টম কমিশনার সৈয়দ গোলাম কিবরিয়া, চট্টগ্রাম চেম্বারের সহ সভাপতি মাহাবুবুল আলম, মহিলা চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি আবিদা মোস্তফা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রফেসর এম এ আকাশ।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে কর কমিশনার হারুন উর রশিদ, নাছিম গণি, মো. ইকবাল হোসেন, লুৎফুল, মো. মাহবুবুর রহমান, সৈয়দ মো. আবু দাউদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।