১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, মঙ্গলবার

‘মানবপ্রেম ছাড়া আত্মার মুক্তি অসম্ভব’

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, নভেম্বর ২৩, ২০১৮, ২:১২ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: মানবপ্রেম ছাড়া আত্মার মুক্তি অসম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্ট ধর্মীয় বক্তা শ্রী শ্রী স্বামী সজলানন্দগিরি মহারাজ।

দেশের আদি রাসস্থলী চট্টগ্রামের বোয়ালখালীর শাকপুরার শ্রী শ্রী রাসবিহারী ধামের ৬৩ তম রাস উৎসবের ধর্মসভায় তিনি এ কথা বলেন।

শ্রী শ্রী স্বামী সজলানন্দগিরি মহারাজ বলেন, মানবপ্রেমই বড় প্রেম। তাই বিভেদ ভুলে মানুষকে ভালোবাসুন। মানুষ ভজলেই ভগবান শ্রী কৃষ্ঞের কৃপালাভ সম্ভব।

তিনি আরো বলেন, মানবপ্রেম ছাড়া আত্মার মুক্তি অসম্ভব। তাই মানবপ্রেমকেই বড় করে দেখতে হবে। পৃথিবী ব্যাপী কৃষ্ঞনাম ছড়িয়ে দিতে হবে।

ধর্মসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ ও ওয়েল গ্রুপের পরিচালক ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাতা নজরুল ইসলাম। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের অধ্যাপক শ্রী সুকান্ত ভট্টাচার্য্য। প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা রমনা কালীমন্দিরের পরিচালনা কমিটির সদস্য শ্রী মিলন শর্ম্মা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নজরুল ইসলাম বলেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। শ্রীকৃষ্ঞ যে মানবমুক্তির আদর্শ শিখিয়েছেন তা প্রত্যেক সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ধারণ করতে হবে। তাঁর আদর্শে জীবনকে সাজাতে হবে।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে শ্রী সুকান্ত ভট্টাচার্য্য বলেন, ধর্ম অত্যন্ত গভীর বিষয়। ধর্মকে জানতে হবে। বুঝতে হবে। সবচেয়ে বড় কথা হলো কৃষ্ঞপ্রেম থাকতে হবে। তবেই আত্মশুদ্ধি অবশ্যম্ভাবী।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে শ্রী মিলন শর্ম্মা বলেন, কৃষ্ঞ নাম জপে যে প্রশান্তি আছে তা অন্য কোথাও নেই। তাই কৃষ্ঞ নামে প্রেমে নিজেকে সঁপে দিন। দেখবেন জীবন বদলে যাবে।

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ শ্রী বাদল চন্দ্র দাশ’এর সভাপতিত্বে ও হিমাদ্রী রাহা’র সঞ্চালনায় এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষাবিদ শ্রী বিজয় শংকর চৌধুরী, সমাজসেবক শ্রী সুজিত কুমার বিশ্বাস, সংগঠক মিহির কিরণ চৌধুরী, মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি সুভাষ চৌধুরী টাংকু, উৎসব পরিচালনা কমিটির কার্যকরী সভাপতি চন্দন কুমার চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ছোটন কান্তি বোস, সুবীর কান্তি দাশ, মহিলা সম্পাদিকা নন্দিতা বসু, কোষাধ্যক্ষ পংকজ চৌধুরী, প্রচার সম্পাদক সাজু চৌধুরী প্রমুখ।

শনিবার (২৪ নভেম্বর) ভোরে নগর কীর্তন’এর মধ্য দিয়ে শেষ হবে এই রাস উৎসব।