শনিবার, ৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭

লোহাগাড়ায় করোনায় আক্রান্ত পুরো পরিবার, মারা গেলেন একজন

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, জুন ২, ২০২০, ১১:৪৫ অপরাহ্ণ

এ. কে. আজাদ, লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) : চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় করোনায় মৃত্যুর মিছিলে এবার যোগ হলেন আব্দুল আলিম (৬৮) নামের এক বৃদ্ধ। তিনি উপজেলার কলাউজান ইউনিয়নের পূর্ব কলাউজানের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম মিয়াজিপাড়ার মৃত আশরাফুজ্জামান চৌধুরীর পুত্র।

সোমবার (১জুন) দিবাগত রাত তিনটার দিকে হোম আইসোলেশনে থাকাবস্থায় তিনি মারা যান। শুধু ৬৮ বছর বয়সী বৃদ্ধ আব্দুল আলীম নন পরিবারে তাঁর স্ত্রী, দুই ছেলে আবু ছিদ্দিক রাসেল (৩২) ও মোহাম্মদ কাইছারও (২৮) করোনায় আক্রান্ত। এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন তাদের প্রতিবেশী স্থানীয় কলাউজান ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এম এ ওয়াহেদ।

স্থানীয় কলাউজান ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এম এ ওয়াহেদ জানান, সোমবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে প্রতিবেশী আব্দুল আলিমের মৃত্যুর খবর পাওয়া মাত্রই আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ওসি এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে ফোন করে তাঁর মৃত্যুর সংবাদটি জানিয়ে দিই। তারা মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় মৃত আব্দুল আলিমের বাড়ীতে উপজেলায় করোনায় মৃত ব্যাক্তিদের দাফন-সৎকারে গঠিত কমিটির সদস্যদের পাঠান। এরপর দুপুর ১২টার দিকে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করে শুধুমাত্র ১২/১৫ জন এলাকাবাসী ও স্বজনদের উপস্থিতিতে জানাজার নামাজ শেষে তাঁকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

এদিকে, লোহাগাড়া স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ হানিফ জানান, করোনার উপসর্গ দেখা দিলে মৃত আব্দুল আলিমের ছেলে আবু ছিদ্দিক রাসেল গত ২ মে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে করোনার নমুনা দিয়ে যায়। করোনা পরীক্ষায় রাসেলের রিপোর্ট পজিটিভ এলে তাঁকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়ে হোম আইসোলেশনে পাঠানো হয়। পরবর্তীতে গত ২০ মে তাঁর বাবা আব্দুল আলিম, মা, স্ত্রী ও ছোট ভাই কাইছারসহ পরিবারের সকলের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। পরীক্ষায় রাসেলের স্ত্রী ছাড়া সকলের করোনা পজেটিভ রিপোর্ট এলে তারা যথারীতি হোম আইসোলেশে চলে যান। হোম আইসোলেশে থাকাবস্থায় পরিবারের অন্যদের শারীরিক অবস্থা ভালো থাকলেও হঠাৎ সোমবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে শ্বাসকষ্ট বেড়ে রাসেলের বাবা ৬৮ বছর বয়সী আব্দুল আলিম মারা যান। করোনা পজেটিভ ছাড়াও তাঁর ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হার্ট ও শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগ ছিল।

ডা. মোহাম্মদ হানিফ আরো জানান, লোহাগাড়ায় এ পর্যন্ত করোনায় ৭ জন নিহত এবং ৫৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তবে, মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনার নমুনা দিয়ে রিপোর্টে পজেটিভ আসা আব্দুল আলিমই প্রথম মৃত ব্যক্তি। অন্য মৃত ব্যাক্তিরা সবাই উপজেলার বাইরেই চিকিৎসাধীন ছিলেন এবং সেখানেই নমুনা দিয়েছেন।