শনিবার, ৮ আগস্ট ২০২০, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭

কাজাখস্তানে করোনার মাঝেই ‘অজানা’ নিউমোনিয়ার হানা

প্রথম ছয় মাসে মারা গেলো ১৭৭২ জন

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, জুলাই ১০, ২০২০, ৭:৩৪ অপরাহ্ণ


আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ‘মধ্য এশিয়ার দেশ কাজাখস্তানে ছড়িয়ে পড়ছে নতুন ধরনেসর এক অজানা প্রাণঘাতি নিউমোনিয়া। এই ‘অজানা নিউমোনিয়ায়’ এ বছরের প্রথম ছয় মাসে সেখানে মারা গেছে ১৭৭২ জন। কেবল জুনেই এ সংখ্যা ছিল ৬২৮। ’ মধ্য এশিয়ায় বসবাস করা নিজেদের নাগরিকদের সতর্ক করতে কাজাখস্তানের চীনা দূতাবাস থেকে এমনই বার্তা দেয়া হয়েছে বৃহস্পতিবার। চীনা দূতাবাস তাদের নাগরিকদের হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, এটি কোভিড-১৯ এর চেয়েও বেশি প্রাণঘাতি আর ভয়াবহ। তবে চীনের এইসব দাবীকে অস্বীকার করেছে কাজাখস্তানের স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট চীনা দূতাবাসের একটি বিবৃতি উল্লেখ করে জানিয়েছে, কাজাখস্তানের আটিরাউ, আকটোবে এবং শাইমকেন্ট শহরে জুন মাসের মাঝামাঝি থেকে এই নিউমোনিয়া ছড়াতে শুরু করে। এতে বলা হয়,’এই নিউমোনিয়ায় মৃত্যুর হার করোনাভাইরাসের কারণে হওয়া নিউমোনিয়ার চেয়ে অনেক বেশি।’

তবে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই নিউমোনিয়া কি করোনাভাইরাসেরই কারণেই হচ্ছে নাকি এটি একেবারে ভিন্ন ধরনের কোনো করোনাভাইরাস, সে ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত করে কিছু জানা যায়নি।

এ ব্যাপারে কাজাখস্তানের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ভাইরাল নিউমোনিয়াই ছড়িয়েছে। তবে ঠিক কোন ভাইরাসের সংক্রমণ এত মারাত্মক আকার নিয়েছে সেটা এখনও স্পষ্ট নয়। তাই এই সংক্রমণকে অজানা নিউমোনিয়াই বলা হচ্ছে।

কাজাখস্তানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এখন এনিয়ে তুলনামূলক সমীক্ষা চালাচ্ছে, কিন্তু কোনো উপসংহারে পৌঁছাতে পারেনি।

যদিও সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের প্রতিবেদন অনুসারে, কাজাখস্তানের প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট তোকায়েভ বলেছেন, ‘করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ধাক্কা এসেছে দেশে। যার কারণেই বহু মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ফের লকডাউন কড়াকড়ি করার কথা ভাবা হচ্ছে।

কাজাখস্তানের সরকারি বার্তা সংস্থা কাজ-ইনফর্মে প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী, জুন মাসে সেখানে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা গত বছরের তুলনায় প্রায় ২ দশমিক ২ শতাংশ বেশি। কাজাখস্তানে এ পর্যন্ত ৫০ হাজারের বেশি কোভিড-১৯ সংক্রমণ ধরা পড়েছে। সরকারি হিসেবে মারা গেছে ২৬৪ জন। বৃহস্পতিবার সেখানে এক দিনে সর্বোচ্চ ১,৯৬২ জনের সংক্রমণ ধরা পড়ে।

চীনের উত্তর-পশ্চিমের শিনজিয়াং প্রদেশের সঙ্গে কাজাখাস্তানের সীমান্ত থাকায় চীনা বিশেষজ্ঞরা এই নিউমোনিয়া যাতে সীমান্ত হয়ে সেখানে ছড়াতে না পারে সেজন্যে এখনই ব্যবস্থা নেওয়ার উপর জোর দিয়েছেন।

এদিকে, কাজাখাস্তানের এই রহস্যজনক নিউমোনিয়া নিয়ে চীনের সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক আলোচনা চলছে।