শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭

পানি বাড়িতে, ঈদ নেই বন্যাদুর্গত জনপদের ঘরেতে

প্রকাশিতঃ শনিবার, আগস্ট ১, ২০২০, ৮:৩৫ অপরাহ্ণ


ঢাকা : মহামারী করোনা আর বন্যাদুর্গত জনপদে আজ ঈদুল আজহা পালিত হয়েছে এক ভিন্ন পরিস্থিতিতে। দেশে করোনায় আক্রান্ত হাজার হাজার মানুষ। অনেকে হারিয়েছেন তাদের প্রিয়জন। অনেকের স্বজন বাড়িতে বা হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন মৃত্যু যন্ত্রণায়। অর্থনৈতিক বিপর্যয়ে পরাস্ত লক্ষ লক্ষ পরিবার এবার পশু কুরবানি করতে পারছেন না। এসব কারণে ধর্মীয় বাধ্যবাধকতার বাইরে সত্যিকার অর্থে আনন্দটা ম্রিয়মাণ।

এ অবস্থার মাঝে করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কম সংখ্যক মুসল্লির উপস্থিতিতে দেশের মসজিদগুলিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে ঈদের জামায়াত। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের পরামর্শ মেনে এবারেও জাতীয় ঈদগাহসহ দেশের প্রধান প্রধান ঈদগাহে এবং উন্মুক্ত স্থানে বড় জামাত আয়োজন করা থেকে বিরত থেকেছেন স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। বন্যাকলিত সিরাজগঞ্জের গ্রামে পানিতে ডুবে যাওয়া মসজিদের সামনে নৌকায় বসেই ঈদের দু’রাকাত নামাজ আদায় করতে হয়েছে বলে খবর জানা গেছে।

এছাড়া, রাজধানীসহ সারা দেশেই সকাল থেকে থেমে থেমে বৃষ্টির প্রকোপে আর জলমগ্ন পরিস্থিতির মাঝে প্রত্যক মসজিতে বা মাদ্রাসা চত্বরে আয়োজিত জামায়াত শেষে মুনাজাতে করোনাভাইরাস মহামারিসহ সব ধরনের দুর্যোগ দুর্বিপাক থেকে মানবজাতিকে হেফাজতের জন্য মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের দরবারে ফরিয়াদ জানানো হয়েছে। একই সাথে দেশ জাতি ও জনগণের কল্যাণ ও বিশেষ করে মুসলিম উম্মাহর ঐক্য ও সমৃদ্ধি কামনায় দোয়া করা হয়েছে। নামাজ শেষে মাস্ক পরিহিত মুসল্লিরা পরস্পরে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করলেও করোনা সতর্কতার কারণে কোলাকুলি থেকে বিরত থাকেন।

ঈদের নামাজ শেষে সামর্থ্য অনুযায়ী পশু কোরবানি এবং অংশবিশেষ গোশত গরীব ও দুস্থদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

বন্যার্তদের মাঝে সেনাবাহিনীর ঈদ উপহার বিতরণ

ফরিদপুরের পদ্মা নদীর পাড়ে বন্যার্তদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ করেছে সেনাবাহিনী। শনিবার নবম পদাতিক ডিভিশনের ব্যবস্থাপনায় ৮১ পদাতিক ব্রিগেডের অধীনস্থ ২৮ বীর ফরিদপুর অঞ্চলে ঈদ উপহার বিতরণ করেছে।

সেনাপ্রধানের পক্ষ হতে ফরিদপুরে বন্যাদুর্গত প্রায় ৫০০ জনের মধ্যে ঈদ উপহার হিসেবে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়েছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি টিম ফরিদপুরে এই ঈদ উপহার বিতরণ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকেই বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নবম পদাতিক ডিভিশনের ৮১ পদাতিক ব্রিগেডের অধীনস্থ ২৮ বীর ফরিদপুর জেলায় জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

সাম্প্রতিক সময়ে এই অঞ্চলে বন্যার প্রকোপ দেখা দেয়ায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বন্যাদুর্গত লোকজনকে সহায়তার জন্য সেনাপ্রধানের পক্ষ হতে বন্যার্তদের মাঝে খাবার সামগ্রী সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।