সোমবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬

শচীন টেন্ডুলকারের রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছেন সাকিব

প্রকাশিতঃ শনিবার, জুলাই ৬, ২০১৯, ১২:১০ পূর্বাহ্ণ


লন্ডন: এবারের বিশ্বকাপে প্রত্যাশার চেয়েও ভালো খেলেছেন সাকিব আল হাসান। ব্যাট হাতে একাই বাংলাদেশ দলকে টেনেছেন বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার।বিশ্বকাপের চলমান ১২তম আসরে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে বিশ্বেরনামিদামি ব্যাটসম্যানদের ছাড়িয়ে কিংবদন্তি ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকারের রেকর্ডে ভাগ বসানএ অলরাউন্ডার।

শুক্রবার ইংল্যান্ডের লর্ডসে পাকিস্তানের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচেও তুলে নিয়েছেন ফিফটি। এদিন ৭৭ বলে ছয়টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৬৪ রান করেন সাকিব। আর এই ফিফটির মধ্য দিয়ে ক্রিকেট বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান শচীন টেন্ডুলকারের রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছেন সাকিব।

২০০৩ সালের বিশ্বকাপে ১১ ম্যাচ খেলে সাতটি ফিফটির ইনিংস খেলেছিলেন শচীন টেন্ডুলকার। বিশ্ব ক্রিকেটের ইতিহাসে সেঞ্চুরির সেঞ্চুরি করা শচীনের চেয়ে দুই ম্যাচ কম খেলে সাতটি ফিফটির রেকর্ড গড়েছেন বাংলাদেশ সেরা ক্রিকেটার সাকিব।

শুক্রবার ৬৪ রান করার মধ্য দিয়ে রোহিত শর্মাকে ছাড়িয়ে শীর্ষে উঠে যান সাকিব। নয় ম্যাচে (৭৫, ৬৪, ১২১, ১২৪*, ৪১, ৫১, ৬৬ ও ৬৪) সবমিলে ৬০৬ রান সংগ্রহ করে বিশ্বকাপের চলতি আসরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহের তালিকায় শীর্ষে উঠে যান সাকিব। সাত ম্যাচে ৫৪৪ রান করে সাকিবের ঠিক পরেই আছেন ভারতীয় ওপেনার রোহিত শর্মা।

আট ম্যাচে ৫১৬ রান করে তৃতীয় পজিশনে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। সমান ম্যাচ খেলে ৫০৪ রান নিয়ে চতুর্থ পজিশনে অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। আর নয় ম্যাচে ৫০০ রান করে পঞ্চম পজিশনে আছেন ইংলিশ তারকা ব্যাটসম্যান জো রুট।

বিশ্বকাপের ইতিহাসে এক আসরে সর্বোচ্চ ৬৭৩ রান করেন শচীন। তিনি ২০০৩ সালের বিশ্বকাপে এ রান করেছিলেন। ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ম্যাথু হেইডেন ৬৫৯ রান করেছিলেন।বিশ্বকাপের এক আসরে রান সংগ্রহে শচীন টেন্ডুলকার ও ম্যাথুহেইডেনের ঠিক পরেই আছেন সাকিব। বাংলাদেশ দলের সাবেক এ অধিনায়ক নয় ম্যাচে সংগ্রহ করেছেন ৬০৬ রান।

তবে বিশ্বকাপের ইতিহাসে ৪৫ ম্যাচে সর্বোচ্চ ২২৭৮ রান সংগ্রহ করেন শচীন টেন্ডুলকার। তার চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলে অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিং সংগ্রহ করেন ১৭৪৩ রান। ৩৭ ম্যাচ খেলে ১৫৩২ রান করেন শ্রীলংকার কিংবদন্তি ক্রিকেটার কুমার সাঙ্গাকারা।