মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬

পূর্ণমন্ত্রীর শপথ নিলেন ইমরান, প্রতিমন্ত্রীর ইন্দিরা

প্রকাশিতঃ শনিবার, জুলাই ১৩, ২০১৯, ৯:৫০ অপরাহ্ণ

ঢাকা : মন্ত্রিসভায় নতুন দায়িত্ব নিতে শপথ নিলেন ইমরান আহমেদ ও ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। শনিবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বঙ্গভবনের দরবার হলে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এই দুজনকে শপথ বাক্য পড়ান।

মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী হিসেবে আলাদাভাবে শপথ নেওয়ার পর পৃথকভাবে গোপনীয়তার শপথও নেন ইমরান ও ইন্দিরা। শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

ইমরান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন, তিনি পূর্ণ মন্ত্রী হলেন। আর ইন্দিরা প্রতিমন্ত্রী হিসেবে মন্ত্রিসভায় যোগ হলেন।

দরবার হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, মন্ত্রিসভার সদস্যসহ আমন্ত্রিত অতিথিরা শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ হোসেনও শপথ অনুষ্ঠানে ছিলেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল বিজয়ের পর গত ৭ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে টানা তৃতীয় মেয়াদে শপথ নেন শেখ হাসিনা। ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী এবং তিনজন উপমন্ত্রীকে নিয়ে নতুন সরকারের মন্ত্রিসভা সাজান তিনি।

৫ মাসের মাথায় মন্ত্রিসভায় প্রথম পরিবর্তন এলেও নতুন কাউকে নেওয়া হয়নি।

প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে তথ্যে বদলি করা হয়। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে দায়িত্বরত মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের দায়িত্ব ভাগ করে দেওয়া হয়।

একজনের পদোন্নতি এবং একজনের অন্তর্ভুক্তিতে মন্ত্রিসভায় এখন মন্ত্রীর সংখ্যা বেড়ে হল ২৫ জন। প্রতিমন্ত্রীর সংখ্যাও একজন বেড়ে হল ২০ জন। উপমন্ত্রীর সংখ্যা তিনজনই থাকল।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে এতদিন কোনো মন্ত্রী ছিলেন না। সিলেট-৪ আসনের সংসদ সদস্য ইমরান আহমদ প্রতিমন্ত্রী হিসেবে একাই দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন।

দীর্ঘদিন আওয়ামী লীগের সঙ্গে যুক্ত ব্যবসায়ী ইমরান ১৯৮৬ সাল থেকে ছয় বার সংসদে প্রতিনিধিত্ব করছেন। তার স্ত্রী অধ্যাপক নাসরিন আহমদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে উপ-উপাচার্য।

মন্ত্রীর দায়িত্বে ইমরান একই মন্ত্রণালয়ে থাকবেন, না প্রধানমন্ত্রী তার দপ্তর বদলে দেবেন, সে বিষয়ে কোনো ঘোষণা এখনও আসেনি।

ঘোষণা না এলেও সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য ইন্দিরা প্রতিমন্ত্রী হিসেবে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাচ্ছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে। এতদিন প্রধানমন্ত্রী নিজেই এ মন্ত্রণালয়ের দেখভাল করে আসছেন।

একুশে/ডেস্ক/এসসি