রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬

কংগ্রেসের অন্তর্বর্তী সভাপতি হলেন সোনিয়া গান্ধী

প্রকাশিতঃ রবিবার, আগস্ট ১১, ২০১৯, ১০:৩৮ পূর্বাহ্ণ

নয়াদিল্লি: কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি হলেন সোনিয়া গান্ধী। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় দলের শীর্ষ নেতৃত্বের উপস্থিতিতে দিল্লিতে বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। ১২ বছর পর সোনিয়া গান্ধী আবার দলটির শীর্ষ পদে অধিষ্ঠিত হলেন। খবর এনডিটিভি ও আনন্দবাজার পত্রিকা।

কংগ্রেস সূত্রে জানা গেছে, গতকালও দলের এক অংশের নেতারা রাহুল গান্ধীকে সভাপতি পদে ফিরে পেতে আগ্রহী ছিলেন। কিন্তু পদত্যাগপত্র তুলে নিতে রাজি হননি রাহুল। এমন অবস্থায় সোনিয়া গান্ধীর দ্বারস্থ হন দলের নেতারা। যত দিন পর্যন্ত রাহুলের বিকল্প পাওয়া না যাচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত দায়িত্ব নিতে অনুরোধ করা হয় সোনিয়া গান্ধীকে। এ অবস্থায় না বলতে পারেননি কংগ্রেসের এ সাবেক সভাপতি। সোনিয়া সভাপতির দায়িত্ব নিতে রাজি হওয়ার পর রাহুল গান্ধীর পদত্যাপত্রও গৃহীত হয়।

এর আগে এ দিন সকালে দিল্লিতে কংগ্রেসের পরবর্তী সভাপতি নির্বাচনের জন্য ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক বসে। এতে নিজেদের বক্তব্য তুলে ধরে বৈঠক ছেড়ে চলে যান পদত্যাগী কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এবং কংগ্রেস সংসদীয় দলের নেত্রী সোনিয়া গান্ধী।কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই দিনের বৈঠক শেষ হয়।

পরে কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা সাংবাদিকদের জানান, বৈঠকে দলের পরবর্তী সভাপতি নিয়ে কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। রাতে আবার বৈঠকে বসবে ওয়ার্কিং কমিটি।

রাতের বৈঠকে আলোচনায় আসেন সোনিয়া গান্ধী, সাবেক মন্ত্রী মুকুল ওয়াসনিক, মল্লিকার্জুন খড়গ ও পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরেন্দ্র সিংহের নাম। তবে বাছাই কমিটির অধিকাংশ সদস্যই আগামী সাংগঠনিক নির্বাচনের আগ পর্যন্ত সোনিয়া গান্ধীকে কংগ্রেস সভাপতির দায়িত্ব পালন করতে অনুরোধ করেন।

রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেন, সকালের বৈঠকে রাহুল গান্ধীকে পদত্যাগ প্রত্যাহারের অনুরোধ জানান প্রত্যেক সদস্য। কিন্তু পদত্যাগের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে অনড় থাকেন রাহুল। বলেন, প্রত্যেক কর্মীর সঙ্গে লড়াইয়ের ময়দানে থাকবেন তিনি। অচলাবস্থা কাটাতে দলের যোগ্য কাউকে পরবর্তী সভাপতি বেছে নিতে অনুরোধও করেন রাহুল গান্ধী।