মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

আফগানদের রানের পাহাড়, হারের শঙ্কায় সাকিবরা

প্রকাশিতঃ শনিবার, সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯, ৬:১৯ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: ইনিংসের শুরুতেই আফগান শিবিরে জোড়া আঘাত এনে আশা জাগিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। এরপর তৃতীয় সাফল্য এনে দেন অফস্পিনার নাঈম হাসান। পরপর তিন টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানকে হারিয়েও চাপে পড়েনি সফরকারীরা। বরং রানের গতি ধরে রেখে নির্বিঘ্নে তৃতীয় দিন কাটিয়ে দিয়েছে রশিদ খানের দল।

আলোর স্বল্পতার কারণে তৃতীয় দিনের খেলা শেষ হয়ে গেছে আগেভাগেই। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে আট উইকেটে ২৩৭ রানে দিন শেষ করে আফগানিস্তান। আফসার জাজাই ৩৪ ও ইয়ামিন আহমেদজাই কোনো রান না নিয়ে অপারিজত রয়েছেন। তাতে লিড ৩৭৪ রানের। হাতে আছে দুই উইকেট।

আফগানিস্তানের ৩৪২ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে ৭০.৫ ওভার খেলে ২০৫ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। ফলে ১৩৭ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ে নামে অতিথিরা।

আফগানদের দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেই দুই উইকেট তুলে নেন সাকিব। প্রথম ওভারে পরপর দুই বলে ফিরিয়ে দেন ইহসানউল্লাহ ও রহমত শাহকে।

ব্যাট করতে নেমে ওভারের প্রথম বলে বাউন্ডারি মারেন ইহসানউল্লাহ। পরের বলটি ডট। কিন্তু তৃতীয় বলে আর রক্ষা পেলেন না। এলবির ফাঁদে পড়ে বিদায় নেন চার রানে। পরের বলে আবারও সাকিবের আঘাত। এবারের শিকার আগের ইনিংসে ইতিহাস গড়া সেঞ্চুরি করা রহমত শাহ। সেঞ্চুরিয়ান রহমত ফিরে যান গোল্ডেন ডাকে।

তৃতীয় উইকেটে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে আফগানিস্তান। ইব্রাহিম জাদরান আর হাসমতউল্লাহ শাহেদি মিলে ২৪ রান যোগ করেন। শেষ পর্যন্ত সেই জুটি ভাঙেন নাঈম। তরুণ এই অফস্পিনারের বলে ডিফেন্স করতে গিয়ে প্রথম স্লিপে সৌম্য সরকারকে ক্যাচ দিয়েছেন শাহেদি (১২)।

এরপর ইব্রাহিম ও আসগর আফগান মিলে বাংলাদেশি বোলারদের উপর তাণ্ডব চালান। হাফ-সেঞ্চুরি স্পর্শ করে ৮৭ রানের ইনিংস খেলেন অভিষিক্ত ইব্রাহিম। হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন আসগরও। দুজন মিলে গড়েন ১০৮ রানের জুটি। অবশেষে আসগরকে ফিরিয়ে সেই জুটি ভাঙেন তাইজুল। ইব্রাহিমকে ফেরান নাঈম। এরপর শেষের দিকের ব্যাটসম্যানদের ওপর ভরকরে ২৩৭ রানে দিন শেষ করে সফরকারীরা।

বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে ৫৩ রানে তিন উইকেট নেন সাকিব। ৬১ রান দিয়ে দুই উইকেট নেন নাঈম। তাইজুলের শিকার দুই উইকেট।

এর আগে ১৯৪ রান নিয়ে তৃতীয় দিন ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারেই ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। ওভারের তিন নম্বর বলে বাজে এক শটে বোল্ড তাইজুল ইসলাম। এরপর নাঈমকে এলবির ফাঁদে ফেলে টেস্ট ক্রিকেটে নিজের পঞ্চম উইকেট তুলে নেন রশিদ খান। তৃতীয় দিনে আর ১১ রান যোগ করে ২০৫ রানে শেষ হয় বাংলাদেশের ইনিংস। ইনিংস শেষে ৪৮ রানে অপরাজিত ছিলেন মোসাদ্দেক হোসেন।

আফগানিস্তানের হয়ে বল হাতে পাঁচ উইকেট নেন রশিদ। তিনটি উইকেট নেন মোহাম্মদ নবি। একটি করে উইকেট নেন কায়েস আহমেদ ও ইয়ামিন।