মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

আনোয়ারায় পিতাকে কুপিয়ে পুত্রের আত্মহত্যা

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৯, ১২:০০ অপরাহ্ণ

আনোয়ারা প্রতিনিধি : পারিবারিক কলহের জের ধরে বাবাকে কুপিয়ে আহত করার পর গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে ছেলে।

বুধবার (১১সেপ্টেম্বর) রাতে আনোয়ারা উপজেলার গুয়াপঞ্চক গ্রামের হিন্দুপাড়ায় ক্ষুব্ধ পুত্র চন্দন চৌধুরী (৪০) পিতাকে নৃশংসভাবে কোপানোর ঘটনা জানাজানি হয় বৃহস্পতিবার রাতে।

এ ঘটনায় পিতা মন্টু চৌধুরী (৬৫) গুরুতর আহত অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

পিতাকে কুপিয়ে জখমের পর ঘাতক চন্দন বৃহস্পতিবার (১২সেপ্টেম্বর) বিকালে পটিয়ায় ভায়রার বাড়ি গিয়ে সিলিং ফ্যানের সাথে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পিতা-পুত্রের দীর্ঘ দিন যাবৎ জায়গা-জমির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। গত বুধবার রাতে এ নিয়ে পিতা-পুত্রের ঝগড়ার এক পর্যায়ে পুত্র চন্দন ধারালো অস্ত্র দিয়ে পিতাকে নির্মমভাবে কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়।

এসময় চিৎকার শুনে স্থানীয়রা ছুটে এসে মন্টু চৌধুরীকে আনোয়ারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। বর্তমানে মন্টু চৌধুরী মূমুর্ষ অবস্থায় চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে পটিয়া থানার দায়িত্বরত কর্মকর্তা এএসআই সোহাগ একুশে পত্রিকাকে বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার পৌর সদরের ব্রাহ্মণপাড়া এলাকায় ভায়রার বাড়িতে এসে সবার অজান্তে একটি রুমে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন চন্দন চৌধুরী। স্থানীয়রা খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় নিহতের ভাই সুজন চৌধুরী বাদি হয়ে থানায় অপমৃত্যুর মামলা করেছেন।