সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

একা থাকার শাস্তি দিয়ে গেছেন তিনি : বাদলপত্নী

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, নভেম্বর ৮, ২০১৯, ৮:৩১ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: বাংলাদেশ জাসদের নেতা সংসদ সদস্য মইন উদ্দিন খান বাদলের মৃত্যুর পর আবেগঘন প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তার স্ত্রী সেলিনা মইন উদ্দিন।

বৃহস্পতিবার সকালে স্বামীর মৃত্যুর খবর জানাতে বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আছিয়া খাতুনকে ভারত থেকেফোন করেন সেলিনা মইন উদ্দিন।

সংসদ সদস্য মইন উদ্দিন খান বাদলের মরদেহের পাশে বসে ইউএনও আছিয়া খাতুনকে ফোনে তিনি বলেন, আমাকে একলা রেখে চলে গেলেন তিনি। একা থাকার এই শাস্তিটা তিনি আমাকে দিয়ে গেছেন। আমাকে অনেক দায়িত্ব দিয়ে গেছেন। সব দায়িত্ব আমি পালন করবো।

স্বামীর লাশ পাশে রেখে কথা বলার চেয়ে কষ্টের আর কিছু যে হতে পারে না সেটাও ইউএনও আছিয়াকে জানান সেলিনা মইন উদ্দিন।

সংসদ সদস্য বাদলের স্ত্রীর সঙ্গে উক্ত কথোপকথনের তথ্য শুক্রবার একুশে পত্রিকাকে জানিয়েছেন বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আছিয়া খাতুন।

তিনি বলেন, বুধবার আমি খবর পাই, এমপি মহোদয়ের শারীরিক অবস্থা আশংকাজনক। স্ট্রোক করেছেন, গলায় অপারেশন হয়েছে, কথা বলার অবস্থায় নেই। বোয়ালখালীর একজন জনপ্রতিনিধি আমাকে বলেছেন, এমপি সাহেব ফিরবে কি ফিরবে না তার তো ঠিক নেই। এই কথাটা শুনে আমার খুব খারাপ লেগেছিল। স্যার অসম্ভব ভালো একজন মানুষ ছিলেন। ভাবতেই পারিনি তিনি এভাবে চলে যাবেন।

বৃহস্পতিবার ভোরে ভারতের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় চট্টগ্রামের সংসদ সদস্য বাদল। বছর দুই আগে ব্রেইন স্ট্রোক হওয়ার পর থেকেই তিনি অসুস্থ ছিলেন। ৬৭ বছর বছর বয়সী এই রাজনীতিবিদ হৃদযন্ত্রের জটিলতায়ও ভুগছিলেন।

ষাটের দশকে ছাত্রলীগের ‘নিউক্লিয়াসে’ যুক্ত বাদল একাত্তরে ভারতে প্রশিক্ষণ নেন এবং পরে যোগ দেন মুক্তিযুদ্ধে। চট্টগ্রাম বন্দরে অস্ত্রবোঝাই জাহাজ সোয়াত থেকে অস্ত্র খালাস প্রতিরোধের অন্যতম নেতৃত্বদাতা ছিলেন তিনি।

মুক্তিযুদ্ধের পর সমাজতান্ত্রিক রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হন বাদল। জাসদ হয়ে বাসদ এবং পরে আবারো জাসদে ফেরেন।

চট্টগ্রামের বোয়ালখালী-চান্দগাঁও আসন থেকে ২০০৮ সালে মহাজোটের মনোনয়ন পান শরিক দল জাসদের নেতা বাদল। নৌকা প্রতীকে তার বড় জয়ের মধ্য দিয়ে ওই আসনে বিএনপির দীর্ঘদিনের আধিপত্যের অবসান ঘটে। এরপর ২০১৪ এবং ২০১৮ সালে আরও দুই বার তিনি আসনের এমপি নির্বাচিত হয়ে সংসদে যান।