বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬

নাছিরকে ‘শ্রেষ্ঠ মেয়র’ বলে খোয়ানো পদ ফিরে পেলেন মনি

প্রকাশিতঃ রবিবার, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০, ৩:০০ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : বহিষ্কারের চার মাস পর স্বপদে বহাল হলেন চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা দলের সভানেত্রী ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনোয়ারা বেগম মনি।

রোববার দুপুরে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আফরোজা আব্বাস ও সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের এই তথ্য জানানো হয়।

মনোয়ারা বেগম মনি বরাবর পাঠানো চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, ‘ইতোপূর্বে দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থি কর্মকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগের ভিত্তিতে দলীয় গঠনতন্ত্র মোতাবেক বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সকল পর্যায়ের পদ থেকে আপনাকে বহিষ্কার করা হয়েছিলো। মাননীয় মহাসচিব বরাবর আবেদনের প্রেক্ষিতে আপনার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার পূর্বক স্বপদে বহাল করা হলো।’

উল্লেখ্য, গত বছরের ৩ অক্টোবর দুর্গা পূজা উপলক্ষে লালখান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ আয়োজিত হিন্দু সম্প্রদায়ের মাতৃমণ্ডলীর মাঝে শাড়ি বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির।

ওই অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মেয়রের ভূয়সী প্রশংসা করে বক্তব্য দেন নগর মহিলা দল সভানেত্রী ও সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলর মনোয়ারা বেগম মনি।

বক্তব্যে তিনি বলেন,“আ জ ম নাছির কে কোন দল করে সেটা দিয়ে কাজ করেন না। একটা জায়গায় উনি আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি, কিন্তু উনি চট্টগ্রামের অভিভাবক। আগামী দিনেও আ জ ম নাছিরকে আমরা আবার মেয়র হিসেবে দেখতে চাই।

“ইনশাল্লাহ সব কিছুর ঊর্ধ্বে উঠে, সব ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে মেয়র হয়ে আবার এখানে আসবেন। উনি প্রত্যেকটা ওয়ার্ডে যত কাজ করেছেন সেটা বলার লোক খুব কম। উনার দলে উনার পেছনে ষড়যন্ত্র করছে, অন্য দল না। সাধারণ মানুষ আ জ ম নাছিরকে ভালোবাসে।”

“যখন কেউ আ জ ম নাছিরের বিরুদ্ধে কিছু বলে প্রতিবাদ করি। আমি সাক্ষী উনি কাউকে কখনো খালি হাতে ফিরিয়ে দেননি।

“তিনটা মেয়র পেয়েছি আমি। মহিউদ্দিন চৌধুরীকে পেয়েছি, মনজুর আলমকে পেয়েছি, আ জ ম নাছিরকে পেয়েছি। আমার দৃষ্টিতে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। আপনারা যদি আ জ ম নাছিরকে আবার নির্বাচিত করতে না পারেন এটা আপনাদের জন্য ব্যর্থতা, চরম ব্যর্থতা।”

“উনি (নাছির) যদি নমিনেশন না পান আমি নির্বাচন করব না। আর কোনো মেয়রের অধীনে কমিশনার আর হওয়ার ইচ্ছা নাই। অনেক করেছি। আর নির্বাচন করি কি না সেটাও ঠিক নাই।”

মনির বক্তব্যের সময় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন অনুষ্ঠান মঞ্চে বসা ছিলেন।

ওই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন লালখান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিক আহমদ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন ২৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাজমুল হক ডিউক, খুলশী থানার যুগ্ম আহ্বায়ক মোমিনুল হক মোমিন এবং লালখান বাজার ওয়ার্ড কমিটির সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম মাসুম।

মনোয়ারা বেগম মনির এধরণের বক্তব্য দেয়া নিয়ে দলের নেতাকর্মীদের থেকে সমালোচনা শুরু হলে ‘দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থি’ কাজে জড়িত থাকার অভিযোগ এনে মনিকে ৫ অক্টোবর দলের সব ধরণের পদ থেকে বহিষ্কার করে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল।

এর আগে ২৫ জুলাইও অন্য এক অনুষ্ঠানে আ জ ম নাছিরকে আবারও মেয়র হিসেবে দেখার আকাঙ্ক্ষার কথা জানিয়েছিলেন মনি।