বুধবার, ১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬

‘গ্রুপিং’-এর রাজনীতিতে জড়াতে চান না রেজাউল করিম

প্রকাশিতঃ সোমবার, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০, ৫:১২ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : মেয়র নির্বাচিত হলে কোনো ধরনের গ্রুপিংয়ের রাজনীতিতে জড়াবেন না চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ  প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরী। সোমবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে একুশে পত্রিকার সাথে টেলিফোন সাক্ষাৎকারে একথা বলেন তিনি।

একুশে পত্রিকার এক প্রশ্নের জবাবে রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, আমি কখনো গ্রুপিংয়ের রাজনীতিতে জড়িত ছিলাম না। দলের স্বার্থে সব গ্রুপের সঙ্গে মিলেমিশে কাজ করেছি। ভবিষ্যতেও এর ব্যতিক্রম হবে না। সবাইকে সাথে নিয়ে নগর-উন্নয়নে কাজ করবো। গ্রুপিংয়ে কেউ জড়াতে চাইলেও আমি তাতে যুক্ত হবো না, সুযোগ দেবো না। আমরা সবাই আওয়ামী লীগ পরিবারের সদস্য। আর আমাদের অভিভাবক প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।

সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী ও বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অসমাপ্ত কাজ এগিয়ে নিয়ে যাবেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, আ জ ম নাছির উদ্দীন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, দলের নেতা। পাঁচবছর তিনি সিটি করপোরেশন পরিচালনা করছেন। সৌন্দর্যবর্ধনসহ তার যেসব প্রকল্প চলমান আছে সেগুলোকে এগিয়ে নিয়ে যাবো। প্রয়োজনে তার পরামর্শ ও সহযোগিতা নেবো। একইভাবে ১৭ বছর যিনি মেয়র ছিলেন চট্টলবীর এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী তার অসমাপ্ত কাজগুলোও সমাপ্ত করতে উদ্যোগ নেবো।

এক প্রশ্নের জবাবে রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, সিটি করপোরেশন পরিচালনায় সাংবাদিক, সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবী, প্রকৌলশী, নগর পরিকল্পনাবিদসহ সকল পেশার মানুষকে নিয়ে উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করে তাদের পরামর্শ নিয়ে নগর উন্নয়ন ও নগরবাসীর সেবা নিশ্চিত করবো।

কাউন্সিলর প্রার্থী কে হচ্ছেন, কে নির্বাচিত হবেন সেদিকে ভ্রুক্ষেপ নেই জানিয়ে রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, কেন্দ্র থেকে আমাকে এসবে জড়াতে নিষেধ করা হয়েছে। কে কার পছন্দ, কোন প্রার্থী কেমন এসব বিবেচনা আমার নেই। দল থেকে যিনি সমর্থন নিয়ে  আসবেন তিনিই আমার প্রার্থী। ‍যিনি জিতে আসবেন তাকে নিয়েই আমি কাজ করবো।

মেয়র হলে জলাবদ্ধতা নিরসনের চলমান কাজকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এগিয়ে নিয়ে যাবার প্রত্যয় জানিয়ে রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিরসনে ৬ হাজার কোটি টাকার বেশি বরাদ্দ দিয়েছেন। এই কাজ শেষ হলে চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতা আর থাকবে না। জলাবদ্ধমুক্ত, দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে নিজের সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাবো।