বুধবার, ১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬

অভিনেতা-রাজনীতিক তাপস পাল আর নেই

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০, ১১:১৬ পূর্বাহ্ণ


কোলকাতা : বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা তাপস পাল আর নেই। সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে মুম্বাইয়ের বেসরকারি হাসপাতালে তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬১ বছর।

কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকার পত্রিকার খবরে বলা হয়, দীর্ঘদিন ধরে স্নায়ুরোগে ভুগছিলেন তাপস পাল। ১ ফেব্রুয়ারি বান্দ্রার হাসপাতালে ভর্তির পর থেকে তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়। ৬ ফেব্রুয়ারি তাঁর ভেন্টিলেশন খুলে নেওয়া হয়। গতকাল রাতে আবারও অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। পরে দিবাগত রাত তিনটা ৩৫ মিনিটে তাঁর মৃত্যু হয়।

১৯৫৮ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর হুগলির চন্দননগরে জন্ম নেন তাপস পাল। মাত্র ২২ বছর বয়সে তরুণ মজুমদার পরিচালিত ‘দাদার কীর্তি’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তিনি সিনেমা জগতে পা রাখেন। এরপর ‘গুরুদক্ষিণা’, ‘সাহেব’, ‘ভালোবাসা ভালোবাসাসহ’ বেশ কিছু ছবি তাঁকে জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছে দেয়। অভিনেতা হিসেবে তিনি বাংলাদেশেও সমান জনপ্রিয় ছিলেন। ‘সাহেব’ ছবির জন্য তিনি ফিল্ম ফেয়ার পুরস্কার পান। তাপস পাল মাধুরী দীক্ষিতের সঙ্গে ‘অবোধ’ নামের একটি হিন্দি চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছিলেন।

অভিনেতা তাপস পাল পরে রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হন। তিনি ২০০৯ সালের ভারতীয় সাধারণ নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে টিকেট নিয়ে নির্বাচিত হয়ে কৃষ্ণনগর থেকে এমপি হন। এর আগে তিনি পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার বিধায়ক ছিলেন।

২০১৪ সালে, কেন্দ্রীয় সরকারের নির্বাচনের কিছুদিন আগে একটি নির্বাচনী প্রচার সভায় বক্তৃতা দিতে গিয়ে তাপস পাল বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। উক্ত সভায় তিনি নিজেকে “চন্দননগরের মাল” বলে পরিচয় দেন এবং জানান যে তিনি পকেটে “মাল” নিয়ে ঘুরে বেড়ান। এছাড়া তিনি ছেলে পাঠিয়ে বিরোধীপক্ষের সমর্থকদের ধর্ষণ করে দেওয়ার ইচ্ছাও প্রকাশ করেন। পরে এই নিয়ে বিতর্ক তৈরী হলে তিনি প্রকাশ্যে ক্ষমা চান।

২০১৬ সালের শেষ ভাগে তাপস পাল আবার সংবাদ শিরোণামে আসেন। রোজ ভ্যালি নামে একটি চিট ফান্ডের সাথে যুক্ত থাকার অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

তাপস পাল বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিনে হুগলী মহসিন কলেজ থেকে জীববিজ্ঞানে গ্রাজুয়েট করেন।