বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬

এবার করোনার কবলে দক্ষিণ কোরিয়া, দেগু শহর আইসোলেশনে

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০, ৬:২৫ অপরাহ্ণ


ওমর ফারুক হিমেল, দক্ষিণ কোরিয়া : বিশ্বজুড়ে করোনা আতঙ্কের মধ্যেই এবার দক্ষিণ কোরিয়ায় করোনার প্রকোপ আরও বেড়েছে। দেশটিতে ক্রমাগত বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এতদিন ছিল সংক্রমণের আতঙ্ক। এবার যোগ হল মৃত্যুভয়ও। গতকাল কোরিয়ায় একজনের মৃত্যুর পর নড়েছড়ে বসেছে কোরিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

করোনা ভাইরাস এখন পুরো কোরিয়াকে আতংকে ফেলেছে। কোরিয়া জুড়ে থমথমে অবস্থা। শুক্রবার বিকেলে দক্ষিণ কোরিয়ায় আরও ৪৮ জনের শরীরে করোনার জীবাণু মিলেছে বলে সে দেশের স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে। এই নিয়ে ২০৪ জন আক্রান্ত হলেন সেখানে।

দক্ষিণ কোরিয়ার দক্ষিণের শহর দেগুতে করোনার প্রকোপ সর্বাধিক। শুক্রবার সে দেশের প্রশাসন দেগু শহরটিকে করোনা ভাইরাসের স্পেশাল ম্যানেজমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে। পুরো শহরটিকেই আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

কোরিয়ার গণমাধ্যম জানায়, আক্রান্তদের বেশিরভাগই দেগু ও খিয়ংবুক এলাকার। আজ সকালে গিম্পুর উরি হাসপাতালেও দুইজন কোরিয়ানের করোনা সনাক্ত হয়। দেগু, খিয়ংবুক, গিম্পু এলাকায় আজ সকালে নতুন করে আক্রান্তের খবর আসে গণমাধ্যমে।

ধীরে ধীরে ভয়ঙ্কর আকার নিয়েছে এই করোনা ভাইরাস। কোরিয়ার পর্যটন বিভাগ তার দেশের নাগরিকদের ছয়টি দেশে ভ্রমণে সতর্কতা জারি করেছে। বিশেষ করে চীন, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, সিংগাপুর, জাপান, তাইওয়ান।

এদিকে কোরিয়ায় করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার ঘটনায় উদ্বিগ্ন বাংলাদেশী প্রবাসীরা। প্রবাসীদের বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ফেসবুকে সচেতনতামূলক পোস্ট দিচ্ছে। একই সাথে বাংলাদেশ দূতাবাসের ফেসবুক পেইজে নিয়মিত আপডেট দেওয়া হচ্ছে করোনা নিয়ে।

দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশী রবিউল হোসেন জানান, কোরিয়ার বর্তমান পরিস্থিতি উদ্বেগজনক, তিনি বাংলাদেশী প্রবাসীদের জরুরী প্রয়োজন ছাড়া পাবলিক প্লেসে না যেতে অনুরোধ করেন। তিনি আরো জানান, পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে করোনা ভাইরাস ব্যাপকতায় রূপ নেবে।

কোরিয়াতে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জাতীয়ভাবে হেল্প লাইন চালু করা হয়েছে, সবাইকে ১৩৩৯ নাম্বারে কল করে সকল বিষয় জানাতে আহ্বান করেছে কোরিয়ার স্বাস্থ্য বিভাগ।

দক্ষিণ কোরিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম সবাইকে সর্তকতার সাথে চলাফেরার তাগিদ দিয়েছেন। একই সাথে যে কোনো প্রয়োজনে দূতাবাস সার্বিক সহযোগিতা দেবে বলেও তিনি আশ্বাস দেন।