বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

তুচ্ছ ঘটনায় হামলা, মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন মুক্তিযোদ্ধা-সন্তান

প্রকাশিতঃ রবিবার, মার্চ ২৯, ২০২০, ১২:১১ পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রাম : মাদারবাড়িতে তুচ্ছ ঘটনায় প্রতিবেশির হামলায় গুরুতর আহত মোহাম্মদ শফি (৩৮) নগরের সিএসসিআর হাসপাতালের আইসিইউতে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। শফি পশ্চিম মাদারবাড়ি এলাকার মু্ক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মৃত নূর আলীর সন্তান।

একটি তুচ্ছ ঘটনায় প্রতিবেশির ভয়াবহ আক্রমণের শিকার শফিকে প্রথমে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে প্রয়োজন হয় নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের সেবা-চিকিৎসা। চমেক হাসপাতালে আইসিইউ বেডের সংকট থাকায় কয়েকদিন আগে শফিকে নগরের সিএসসিআর হাসপাতালে হস্তান্তর করা হয়। চিকিৎসকদের প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা সত্ত্বেও প্রতিটি মুহূর্ত মৃত্যুর সঙ্গে যুদ্ধ করছেন টগবগে যুবক শফি।

একজন সুস্থ, সবল যুবকের কেন এই মরণদশা -সেটির কারণ অনুসন্ধানে জানা গেলো তিল থেকে তাল অতপর রক্তের বন্যা বইয়ে দেওয়ার ঘটনাটি। আর এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে গত ২২ মার্চ পশ্চিম মাদারবাড়ি নুর আলী কমান্ডার বাড়িতে।

প্রত্যক্ষদর্শীর মতে, একটি তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শফির ছোট ভাই এনামুল হকের ওপর লাঠিসোঠা নিয়ে হামলা করে প্রতিবেশি ফারুক ও তার পরিবারের সদস্যরা। এসময় ছোট ভাইকে রক্ষায় শফি এগিয়ে এলে তার মাথায় মারাত্মকভাবে আঘাত করে তারা। এতে রক্তাক্ত হয়ে সাথে সাথে জ্ঞান হারায় শফি। পরে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। চিকিৎসকরা বলছেন, শফির অবস্থা খুবই শংকটাপন্ন। তার প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। হাঁটুতেও প্রচণ্ড জখমের চিহ্ন আছে।

তুচ্ছ ঘটনায় শফির উপর হামলে পড়েছিল এই দুইজন, যারা এখন পলাতক। ছবি : সংগ্রহ

আহত শফির ছোটভাই এনামুল হক জানান, ছোট একটি সাজনার গাছ কাটা নিয়ে জিজ্ঞেস করায় ক্ষিপ্ত হয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো অস্ত্র নিয়ে দুই দফায় হামলা করে ফারুক। এসময় বড় ভাই শফিকে মাথায় মারাত্মক আঘাত এবং ডান পায়ের হাঁটুতে ছুরিকাঘাত করে ফারুক ও তার ছোট ভাই আহমদ নবী।

এ ঘটনায় সদরঘাট থানায় একটি মামলা করলেও এক সপ্তাহেও পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি বলে অভিযোগ ভুক্তভোগী পরিবারের।

তবে সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফজলুর রহমান ফারুকী জানান, মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে। ঘটনার পর থেকে আসামিরা পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেফতারে সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে। তারা গ্রেফতার হবেই – বলেন ওসি।