মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

মেমনে করোনা রোগীর চিকিৎসা চান মেয়র, আ.লীগ নেতার বিরোধিতা!

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, এপ্রিল ২৪, ২০২০, ৬:২৫ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : করোনা রোগীদের চিকিৎসার কথা মাথায় রেখে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন পরিচালনাধীন নগরের আলকরনে অবস্থিত মেমন ইউনিট ২ তে ৪টি আইসিইউ বেড স্থাপন করতে চান সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

এজন্য ভবনটির চারতলাকে আইসিইউ উপযোগী করে গড়ে তোলা হচ্ছে। আইসিইউ বেড স্থাপনকারী এবং প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি সরবরাহকারী সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সাথে ইতোমধ্যে কথা বলেছে সিটি করপোরেশন। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামি মাসের মাঝামাঝিতে অথবা শেষের দিকে মেমন ইউনিট ২-তেই হবে করোনা রোগীর আইসিইউ সাপোর্ট সম্পন্ন চিকিৎসাসেবা। এসব কথা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী।

তবে এখানে করোনা রোগীদের চিকিৎসা হোক চান না চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য, নগর বাইশ মহল্লা কমিটির সভাপতি  মোহাম্মদ ইউসুফ সর্দার। সম্প্রতি তিনি মেমনের ইউনিট ২-তে করোনা রোগীদের চিকিৎসাকেন্দ্র না করতে ’ক্ষুদেবার্তা’ পাঠিয়ে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনকে অনুরোধ জানিয়েছেন।

মেযরকে পাঠানো ক্ষুদেবার্তায় মোাহম্মদ ইউসুফ সর্দার লিখেন, সম্মানিত মেয়র, শুভেচ্ছা নেবেন। আশা করি ভালো আছেন। আমাদের এলাকার লোকজন জানতে পারে যে, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন পরিচালিত মেমন ইউনিট ২-কে করোনা রোগীদের চিকিৎসাসেবা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে।

আমাদের এলাকা ঘনবসিতপূর্ণ বিধায় এলাকাবাসী আশঙ্কা প্রকাশ করছে, এখানে যদি করোনা রোগীর চিকিৎসাকেন্দ্র করা হয়, করোনা রোগটি এলাকার ঘরে ঘরে ছড়িয়ে পড়বে। তাই আপনার কাছে অনুরোধ, মেমন ইউনিট ২ তে যদি করোনা রোগীর চিকিৎসার সিদ্ধান্ত হয়ে থাকে তা পরিবর্তন করে অন্যত্র সরিয়ে নিন।-এলাকাবাসীর পক্ষে ইউসুফ সর্দার।

ইউসুফ সর্দারের ক্ষুদে বার্তা পাঠানোর কথা স্বীকার করে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন একুশে পত্রিকাকে বলেন, ইউসুফ সর্দার আমাদের দলের মহানগর কমিটির একজন সম্মানিত সদস্য। চট্টগ্রাম নগর বাইশ মহল্লা কমিটির সভাপতি এবং আলকরন সমাজকল্যাণ পরিষদের সভাপতি। তার মতো একজন দায়িত্বশীল ব্যক্তির এমন অনুরোধে আমি অবাক হয়েছি। আমি মনে করি এটা তার ভুল ধারণা, তাকে কেউ করোনা সম্পর্কে সঠিক তথ্য দেননি।

তিনি (ইউসুফ) হাসপাতালটি অন্যত্র সরিয়ে নিতে আমাকে অনুরোধ করেছেন। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, অন্যত্র সরিয়ে নিলে সেখানে কি করোনা আসবে না?

মেয়র নাছির বলেন, মেমন ইউনিট ২-এর চারতলায় করোনা-চিকিৎসাসেবার জন্য প্রয়োজনীয় পরিবেশ গড়ে তোলা হচ্ছে। আইসিইউ বেড স্থাপনের কাজ চলছে সেখানে। এটি সম্পন্ন হলে চট্টগ্রামে করোনা রোগীদের চিকিৎসা নিয়ে তৈরি হওয়া উৎকণ্ঠার কিছুটা হলেও অবসান হবে।

জানতে চাইলে মোহাম্মদ ইউসুফ সর্দার একুশে পত্রিকাকে বলেন, আমি চিকিৎসাবিজ্ঞানের মানুষ নই। করোনার ব্যাপারে আমার তেমন কোনো ধারণা নেই। মেয়রের করোনা হাসপাতালের কথা শুনে এলাকার মানুষ আতঙ্কিত হয়ে আমার কাছে ছুটে আসেন। বলেন, এখানে করোনা চিকিৎসাকেন্দ্র না করতে আপনি মেয়রকে বলুন। তাদের পক্ষ থেকে আমি মেয়রকে জনবসতি নেই এমন এলাকায় এই হাসপাতাল করতে এসএমএস দিয়ে অনুরোধ জানিয়েছি। মেয়র আমাকে কোনো রিপ্লাই দেননি।

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মেয়র যদি এলাকাবাসীর অনুরোধ না শুনে হাসপাতাল করে ফেলেন সেটা মেয়রের ব্যাপার। আমরা তাকে বাধা দিতে যাবো না। তবে হাসপাতালের কারণে এলাকায় যদি করোনার বিস্তার হয় তখন বলবো এর দায় মেয়রের। যোগ করেন ইউসুফ সর্দার।