শনিবার, ৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭

করোনা: চট্টগ্রামে শতাধিক লাশ দাফন করল মানাহিল

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, জুন ২, ২০২০, ৩:২৬ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত বা করোনা সন্দেহে মৃত শতাধিক লাশ দাফন করেছে আল মানাহিল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের কর্মীরা।

করোনা আতঙ্কে পরিবারের সদস্যরা যখন লাশ ফেলে যাচ্ছেন বা ভয়-আতঙ্কে দূরে দূরে থাকছেন; তখন লাশের শেষ বিদায় জানাতে মানবিক মূল্যবোধ নিয়ে গত ১৬ এপ্রিল থেকে এগিয়ে এসেছে সংগঠনটি।

আজ মঙ্গলবার (২ জুন) দুপুর পর্যন্ত ১০২টি লাশ দাফন করেছে আল মানাহিল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন।

আল মানাহিল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের ফেসবুক পেইজে মঙ্গলবার দুপুরে এক পোস্টে লেখা হয়েছে, চট্টগ্রামে আজ ১০০ তম লাশ দাফন করল মানাহিল। ১০০টি লাশ! ১০০ টি পরিবার! ১০০টি পরিবারের কষ্টের ভার আমরা আমাদের কাঁধে নিয়ে মাটি চাপা দিয়ে এসেছি। একেকদিন একেক অভিজ্ঞতা। নাহ! খুব সুখকর সংখ্যা না। সত্যি বলতে গেলে, যখন থেকে আল মানাহিল পরিবার করোনা ভাইরাসে মারা যাওয়া লাশ দাফন কাফনের কাজ শুরু করে, তখনও আমরা কেউই কল্পনা করিনি, এত সংখ্যক লাশ আমাদের দাফন করতে হবে। তাও আবার এত অল্প সময়ের মধ্যে!

এতে আরও লেখা হয়, একেক জায়গার একেক সমাচার। মানুষের ভিন্ন ভিন্ন রূপ আর আচরণে, এখন আমরা অভ্যস্ত। অস্বাভাবিক কিছু না দেখলেই বরং আমাদের এখন অস্বস্তি লাগে। অস্বাভাবিকতাই এখন চরম বাস্তবতা। লাশের সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। আমরা কেউ পরিসংখ্যানের ছাত্র না, কিন্ত তাও বলা যায় মিছিলটা আরও দীর্ঘ হবে। এর শেষ কবে, কিভাবে, কেমনে তা গায়েবের মালিক আল্লাহ ব্যতিত আর কেউই জানে না।

এই করোনা ভাইরাস দুর্যোগে ২৩০ জনের বেশী করোনা রোগীকে ফ্রি এ্যাম্বুলেন্স সেবা দিয়েছে আল মানাহিল। এখন এ্যাম্বুলেন্স হতে শুরু করে, পিপিই, গ্লাভস, মাস্ক ইত্যাদির সংকটের কথা তুলে ধরেছে তারা। এই কর্মকাণ্ড চালিয়ে নেওয়ার জন্য আল মানাহিলকে 01864486804 (বিকাশ-পার্সোনাল) ও 017907161683 (রকেট) নাম্বারে অনুদান দেয়া যাবে।

আল মানাহিল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন বিন জমির বলেন, করোনা আক্রান্ত বা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়ার পর হাসপাতাল থেকে মরদেহগুলো গ্রহণ করে গোসল করানো, জানাজার নামাজ এবং দাফন কিংবা সৎকার পর্যন্ত কাজগুলো আমাদের কর্মীরা করছেন। প্রতিটি পর্যায়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে করা হয়। দাফন শেষে পিপিই পুড়িয়ে ফেলা হয়।

আল মানাহিল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ উদ্দিন বিন জমির বলেন, আজ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত বা করোনা সন্দেহে ১০২ জনের দাফন করা হয়েছে। ৪০ সদস্যের একটি টিম দাফনের কাজ করছে। এখন পর্যন্ত ফাউন্ডেশনের কোনো কর্মকর্তা বা কর্মী নিজ বাড়ি যাননি। নগরীর মোটেল সৈকতেই অবস্থান করে পালাক্রমে কাজ করছেন তারা।