১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৪ ফাল্গুন ১৪২৫, শনিবার

আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা

KSRM Advertisement
প্রকাশিতঃ সোমবার, এপ্রিল ৯, ২০১৮, ৭:৪০ অপরাহ্ণ

ঢাকা: সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা সংস্কারে সরকারের আশ্বাসে মাঠ ছাড়েনি আন্দোলনকারীরা। সোমবার বিকেলে সচিবালয়ে সরকারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক হয় আন্দোলনকারী প্রতিনিধিদের। সেখানে ৭ মে পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দেওয়া হয়। তবে সাধারন শিক্ষার্থীরা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

সন্ধ্যার পর থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় নতুন করে হাজারো শিক্ষার্থীরা জড়ো হচ্ছেন। নেতারা বলছেন, কৌশলে আন্দোলন বন্ধ করার কোনো চক্রান্ত মেনে নেবেনা তারা। তাদের হত্যা করা হলেও এমন সিদ্ধান্ত মানবেন না আন্দোলনকারীরা।

এর আগে বিকেলে সচিবালয়ে সরকারের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করেন শিক্ষার্থীদের ২১ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল। বৈঠক শেষে মে মাসের ৭ তারিখ পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত করার শর্তে কোটা সংস্কারের দাবি পরীক্ষা-নিরীক্ষার আশ্বাস দেওয়া হয় প্রতিনিধি দলের পক্ষ থেকে।

এদিকে সচিবালয়ে প্রতিনিধি দলটি এমন সিদ্ধান্তে একমত পোষণ করলেও মাঠ পর্যায়ে সে সিদ্ধান্ত না মানার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক রাশেদ খান বলেন, সচিবালয়ে তাদের প্রতিনিধিরা যে বৈঠক করে এসেছেন সে বিষয়ে তারা আমাদের কিছু বলেননি। তারা মুখ খুলছেন না। এতে করে আমরা বঝতে পারছি আন্দোলন ভন্ডুল করার জন্য সরকার একটি কৌশল নিয়েছে মাত্র। আমরা এই সিদ্ধান্ত মানিনা। দাবি না মেনে আন্দোলন স্থগিত করার কোনো সুযোগ নেই। প্রয়োজনে সাধারণ শিক্ষার্থীরা জীবন দেবে।

সচিবালয়ে বৈঠকের পর সন্ধ্যায় ঢাবি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ফের ফুসে উঠেছে। আন্দোলনকারীরা বিভিন্ন হল থেকে নতুন করে জড়ো হতে শুরু করেছেন। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়কে লাঠি-সোটা নিয়ে মিছিল করছেন শতশত শিক্ষার্থী।

আন্দোলনস্থলে হ্যান্ড মাইকে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া ঘোষণা দিয়ে সবাইকে যার যার অবস্থানে থাকতে বলা হচ্ছে। আন্দোলন স্থগিতের সিদ্ধান্ত ‘মানিনা- মানবো না’ মুহুর্মূহু স্লোগানে পুরো ক্যাম্পাস মুখর হয়ে উঠছে।

একুশে/এএ