২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১২ বৈশাখ ১৪২৬, বৃহস্পতিবার

মেধার কথা বলে স্বাধীনতাবিরোধীরা চাকরিতে ঢুকলে মেনে নেব না : চট্টগ্রামে নৌ-মন্ত্রী

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ১২, ২০১৮, ৭:২০ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম: মেধার কথা বলে স্বাধীনতাবিরোধীরা সরকারি চাকরিতে ঢুকলে তা মেনে নেবেন না বলে জানিয়েছেন নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান।

বৃহস্পতিবার সকালে চট্টগ্রামে ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউটের (এনএমআই) মাঠে ১৮ তম ব্যাচ ও মাদারীপুর শাখার ৭ম ব্যাচের প্রশিক্ষণার্থী রেটিংসদের প্রশিক্ষণ সমাপনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, আদর্শহীন মেধা ও রাজনীতি দেশের জন্য কোন কল্যাণ বয়ে আনে না। তার প্রমাণ বিএনপি জামায়াতের রাজনীতি। ২০১৩-১৪ সালে তাদের জ্বালাও-পোড়াওয়ের কারণে দেশের অনেক সাধারণ নিরীহ মানুষ মারা গেছে। অন্যদিকে নীতিও আদর্শ নিয়ে বর্তমান সরকার গত নয় বছরে দেশকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়েছে। যার প্রমাণ বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশ।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে সকল সেক্টর একযোগে কাজ করছে সরকার। সে প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হতে চলছে। দেশের আমদানি রপ্তানির ৯০ ভাগ হয় সমুদ্র দিয়ে। তাই শিপিং সেক্টরে দক্ষ মানব সম্পদ সৃষ্টির লক্ষ্যে ট্রেনিং ইনস্টিটিউটসহ বিভিন্ন সংস্থাগুলো নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশি নাবিকদের মার্কেটিং করার কারণে নৌ-বিশ্ব বাজারে নাবিকদের চাহিদা বাড়ছে। যেসকল দেশের নাবিকদের ভিসার সমস্যা আছে, তা নিরসনে সরকার কাজ করছে। তোমরা যারা কর্মক্ষেত্রে যাবে, সব সময় দেশের স্বাধীনতা এবং সার্বভৌমত্বের বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। এমন কোন কাজ করবে না যাতে দেশের সম্মানহানি হয়।

নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউট প্রতি বছর ফ্রি- সী কোর্সে ৬০০ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদানের সক্ষমতা অর্জন করেছে এবং মাদারীপুর শাখার নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হলে প্রতি বছর মাদারীপুর শাখা হতে ৬০০ জনকে অর্থাৎ ২টি প্রতিষ্ঠান হতে বছরে সর্বোমোট ১২০০ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা যাবে। যা হবে মেরিটাইম সেক্টরের জন্য একটি ইতিহাস।

এনএমআইয়ের অধ্যক্ষ ক্যাপ্টেন ফয়সাল আজিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিদায়ী প্রশিক্ষণার্থীদের মনোজ্ঞ কুচকাওয়াজ উপভোগ করেন নৌ পরিবহন মন্ত্রী। অনুষ্ঠানে সেরা তিন প্রশিক্ষণার্থীকে পুরষ্কার দেওয়া হয়।

পুরষ্কারপ্রাপ্তরা হলেন এমদাদুল করিম, দিদার আলম এবং মোরশেদুল ইসলাম। এদের মধ্যে সেরা নৈপুণ্যের জন্য স্বর্ণপদক পান মোরশেদুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

এসআর/একুশে