২৩ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৬, সোমবার

বিভাগীয় কমিশনারকে পতেঙ্গায় ঘুমানোর পরামর্শ

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, এপ্রিল ১৩, ২০১৮, ৭:৩১ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নানকে পতেঙ্গায় থাকার পরামর্শ দিলেন চট্টগ্রাম বৈশাখ উদযাপন পরিষদের অন্যতম সংগঠক, নাট্যজন আহমেদ ইকবাল হায়দার।

শুক্রবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে নগরের ডিসিহিলে বর্ষবিদায় ও বরণ অনুষ্ঠান-মঞ্চে সংবাদ সম্মেলনে শর্তসাপেক্ষে বৈশাখ উদযাপনের অনুমতি প্রসঙ্গে তিনি এ পরামর্শ দেন।

বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নানের দিকে দিকে ইংগিত করে এ নাট্যজন বলেন, ডিসি হিলে অনুষ্ঠান প্রতিদিন চললে যদি কোনো কর্মকর্তার ঘুমের অসুবিধা হয় তবে আপনি পতেঙ্গায় চলে যান। সেখানে গিয়ে আরামে থাকেন।

এসময় নগরের ডিসি হিলে সংস্কৃতিচর্চা বন্ধের ষড়যন্ত্রে জড়িত একজন শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তাকে চিহ্নিত করার দাবি জানান তিনিসহ উপস্থিত চট্টগ্রামের সংস্কৃতি সংগঠকেরা।

আহমেদ ইকবাল হায়দার বলেন, মৌলবাদী গোষ্ঠী যখন মঙ্গল শোভাযাত্রা, পহেলা বৈশাখ উদযাপন নিয়ে প্রশ্ন তুলছে তখন চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানে শর্তারোপ করা হচ্ছে। যা দুঃখজনক।

তিনি বলেন, বর্ষবিদায় ও বরণ অনুষ্ঠানের শর্তে বলা হয়েছে কোনোক্রমেই শব্দদূষণ করা যাবে না। মাইক ব্যবহারে বিরত থাকতে হবে। সাউন্ড সিস্টেম শুধু ডিসি হিল প্রাঙ্গণে সীমিত রাখতে হবে। যানজট সৃষ্টি করা যাবে না। দোকানপাট বসানো বা বিক্রয়-প্রদর্শনী করা যাবে না। বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের গাড়ি চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি করা যাবে না। স্বেচ্ছাসেবক দিয়ে রাস্তা সচল রাখতে হবে। এসব শর্ত মানলে লাখো মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত এ প্রাণের মেলা কীভাবে করব?

৩৯ বছর আমরা যেভাবে ডিসি হিলে বর্ষবিদায় ও বরণ অনুষ্ঠান করেছি এবারও সেভাবে করবেন জানিয়ে আহমেদ ইকবাল হায়দার বলেন, ঢাকার পরে চট্টগ্রাম। এখানকার সংস্কৃতি আলাদা। এটি সরকারি কর্মকর্তাদের উপলব্ধি করতে হবে। ডিসি হিলে সংস্কৃতিচর্চা বন্ধের গভীর ষড়যন্ত্রে জড়িতদের চিহ্নিত করে আমরা বয়কট করব। তাদের আমাদের অনুষ্ঠানে ডাকব না। প্রয়োজনে কঠোর কর্মসূচি দেব।

এটি/একুশে