১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ৫ মাঘ ১৪২৫, শুক্রবার

গবেষণায় চবি শিক্ষার্থীদের সাফল্য

KSRM Advertisement
প্রকাশিতঃ শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮, ৬:০৩ অপরাহ্ণ

চবি প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের শিক্ষার্থীরা জীবপ্রযুক্তি উদ্ভাবনী বিষয়ক প্রতিযোগিতায় দুটি জাতীয় এবং একটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছেন। এর মধ্যে একটিতে চ্যাম্পিয়ন এবং অপরটিতে রানারআপ হয় শিক্ষার্থীরা।

জেনেটিক্স, বায়োইনফরমেটিক্স অ্যান্ড কম্পিউটেশনাল বায়োলজি ভিত্তিক আইডিয়ার জাতীয় পোস্টার প্রদর্শনীতে চ্যাম্পিয়ন হয় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের তিন শিক্ষার্থী। তারা হলেন- তউসিফ রাজা, সুমাইয়া হাফিজ ও আবদুর রহমান অপু।

শুক্রবার (৭ সেপ্টেম্বার) ঢাকায় বঙ্গবন্ধু নভোথিয়েটারে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে ও ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব বায়োটেকনোলজির তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত দেশের প্রথমবারের মতো জীবপ্রযুক্তি মেলা ২০১৮ অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় ২০ হাজার বিজ্ঞানী, উদ্যোক্তা, শিক্ষার্থী, শিক্ষক, গবেষক ও সংগঠক অংশ নেয়া এই মেলায় চবি শিক্ষার্থীরা চ্যাম্পিয়ন হন।

৩৭টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬০০ জন গবেষকের ২০২টি পোস্টার উপস্থাপিত হয় এ প্রতিযোগিতায়। ব্যাকটেরিয়ার অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধী ক্ষমতার বিরুদ্ধে তারা উপস্থাপন করেন একটি মলিকুলার মডেল। এছাড়াও অনুষ্ঠিত হয় প্রথম জাতীয় বায়োটেকনোলজি ভিত্তিক বিজনেস আইডিয়া উপস্থাপন প্রতিযোগিতা।

এতে ২৫টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০০টি দলের মধ্যে তিন ধাপ প্রতিযোগিতা শেষে রানারআপ হয় জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের তউসিফ রাজা, সুমাইয়া হাফিজ ও আবদুর রহমান অপু।

তাদের উপস্থাপিত কচুরিপানাকে জৈবপ্রযুক্তির মাধ্যমে ব্যবহার করে বাণিজ্যিক ধারণা পুরস্কার লাভ করে। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আয়োজিত হলো অস্ট্রেলিয়ার দি ইউনিভার্সিটি অফ কুইন্সল্যান্ডের সহযোগিতায় বিশ্বনন্দিত থ্রি মিনিট থিসিস প্রতিযোগিতা।

তিন মিনিটে গবেষণা উপস্থাপনের এই জনপ্রিয় আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ পর্বে বিজয়ী হয়েছে জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের শিক্ষার্থী মৌসুমি ভৌমিক।

বাংলাদেশের ডায়বেটিস রোগীদের জিনগত পরিবর্তন ও অতিরিক্ত ওজনের সাথে সম্পর্ক নির্ণয় নিয়ে তার গবেষণা উপস্থাপনের জন্য এই পুরস্কার অর্জন করেন। থ্রি মিনিট থিসিস প্রতিযোগিতায় দেশের সর্বমোট ৩২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশ নিয়েছে।

একুশে/আইএস/এটি