২২ মার্চ ২০১৯, ৮ চৈত্র ১৪২৫, শুক্রবার

পাতাল ট্রেন ও ইলেকট্রিক ট্রেন চালু হবে এবার, যদি…

KSRM Advertisement
প্রকাশিতঃ শনিবার, নভেম্বর ৩, ২০১৮, ৬:৪১ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম: আওয়ামী লীগ আবারও ক্ষমতায় আসলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে পাতাল ট্রেন ও ইলেকট্রিক ট্রেন চালু করবেন বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। শনিবার সকাল ১১টায় পটিয়া রেলওয়ে স্টেশনে চট্টগ্রাম-দোহাজারী রুটে এক জোড়া ট্রেন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার রেলওয়েকে ধ্বংস করেছে। বিএনপির আমলে একদিনে ১৩ হাজার রেলওয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারিকে ছাটাই করা হয়েছিল। আর আওয়ামী লীগ সরকার রেলওয়ের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের সব বিভাগীয় শহরগুলোকে রেলের নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আবারও ক্ষমতায় গেলে পাতাল ট্রেন ও ইলেকট্রিক ট্রেন চালু করবেন।

তিনি বলেন, বিদেশ থেকে ৪৬টি উন্নতমানের রেল ইঞ্জিন ও প্রায় দুই শতাধিক উন্নতমানের রেল কোচ আমদানী করা হয়েছে। উন্নয়নের পাশাপাশি রেলওয়ে এখন লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে, যা দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করেছে। বর্তমানে রেলওয়ের উন্নয়ন হওয়ায় দেশের সব বিভাগীয় শহরে বুলেট ট্রেন যাবে। সর্বপ্রথম ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে বুলেট ট্রেন চালু করা হবে। ঢাকা-বরিশাল রুটে ট্রেন চালুর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, চট্টগ্রাম-১০ আসনের সংসদ সদস্য মাঈন উদ্দিন খান বাদল, পটিয়ার সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী, চন্দনাইশ-সাতকানিয়া আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, রেল মন্ত্রণালয়ের সচিব মোফাজ্জল হোসেন, রেলওয়ের মহাপরিচালক কাজী রফিকুল হক, রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল এর মহাব্যবস্থাপক ফারুক আহমেদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠান শেষে মন্ত্রী পতাকা উড়িয়ে চট্টগ্রাম-দোহাজারী রুটে ট্রেন চলাচল উদ্বোধন করেন। এরপর ট্রেনটি পটিয়া স্টেশন থেকে দোহাজারীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। নতুন ট্রেন চালু হওয়ায় স্থানীয়রা এ সময় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন।

উদ্বোধন হওয়া এ রুটে ট্রেন দুটির মধ্যে একটি দক্ষিণ চট্টগ্রামের দোহাজারী স্টেশন থেকে সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে নগরীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে, এটি পৌছবে ৯টা ৪০ মিনিটে। এই ট্রেনটি আবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম রেল স্টেশন থেকে ছেড়ে দুপুর ২টায় দোহাজারী পৌছবে।

অপর ট্রেনটি বিকাল ৩টায় দোহাজারী থেকে ছেড়ে চট্টগ্রাম রেল স্টেশনে পৌছবে সন্ধ্যা ৬টায়। এটি আবার সন্ধ্যা ৭টায় নগর থেকে ছেড়ে গিয়ে ১০টায় দোহাজারী পৌছবে।

প্রসঙ্গত ১৯৫০ সালের দিকে দোহাজারী-চট্টগ্রাম রেললাইনে যাত্রীবাহী ৬ জোড়া ট্রেন চলাচল শুরু হয়। নানা অজুহাতে ১৯৮০ সালে একযোগে তা বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে যাত্রীদের দাবির প্রেক্ষিতে নব্বইয়ের দশকে এক জোড়া ট্রেন চালু করে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

২০০০ সালের ১ অক্টোবর এ লাইনটি সংস্কার ছাড়াই বেসরকারি খাতে ছেড়ে দেওয়া হয়। বছরখানেক পর ২০০২ সালে ১৫ জানুয়ারি তা বুঝে নেয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

২০১৩ সালের ৫ মে চট্টগ্রামের এক অনুষ্ঠানে রেলমন্ত্রী চট্টগ্রাম-দোহাজারী রুটে নতুন ট্রেন চালুর ঘোষণা দিয়েছিলেন। অবশেষে কথা রাখলেন রেলমন্ত্রী। নতুন একজোড়া ট্রেন পেল দক্ষিণ চট্টগ্রাম।