২২ জানুয়ারি ২০১৯, ৮ মাঘ ১৪২৫, সোমবার

সাঁওতাল পল্লীতে হামালার মামলাগুলো হিমঘরে

দুই বছরেও মামলার অগ্রগতি নেই

KSRM Advertisement
প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, নভেম্বর ৬, ২০১৮, ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ

 

ঢাকা : গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে সাঁওতাল পল্লীতে হামলা, আগুন আর হতাহতের ঘটনার দুই বছর পরও সাঁওতাল পরিবারগুলোর পরিচয়-পরাশ্রিত। কারও বাড়ির উঠান, কিংবা পরিত্যাক্ত জমিই এখন তাদের ঠিকানা। হামলার শিকার অনেকে বেঁচে আছেন শরীরে ক্ষত চিহ্ন নিয়ে।

হামলা ও হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলাগুলো এখন হিমঘরে। আগুন দেয়ার ঘটনায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী সদস্যদের বিরুদ্ধে জড়িত থাকার প্রমাণ মিললেও বিভাগীয় বা প্রশাসনিকের পক্ষে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছে মুল অভিযুক্তরা।

উচ্চ আদালতের নির্দেশে মামলাটি তদন্ত করছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআই। যদিও তার দৃশ্যমান অগ্রগতি না হওয়ায় এ নিয়ে সাঁওতালদের মাঝে অসন্তোষ রয়েছে। পাশাপাশি পুনর্বাসন দাবি উপেক্ষিত।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে সাঁওতাল পল্লিতে হামলার দুই বছর পুর্ণ হলো আজ। ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর আগুন দেয়া হয় সাঁওতাল পল্লির কয়েকশ’ বাড়িঘরে। সংঘর্ষের সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান তিন সাঁওতাল। আহত হন আরও অনেকে।

মামলা আর তদন্তের ডামাডোলে অনেকটা আড়ালে চলে গেছে উচ্ছেদকৃতদের পূনর্বাসনের বিষয়টি। আশপাশের এলাকায় কোনো রকমে ঝুপড়ি ঘর তুলে বাস করছে প্রায় আড়াই হাজার পরিবার।

নিহতদের স্মরণে দিনটিকে ‘সাঁওতাল হত্যা দিবস’ হিসেবে পালন করে আসছে উচ্ছেদ হওয়া অধিবাসীরা।

একুশে/আরএস/এসসি