২২ জানুয়ারি ২০১৯, ৯ মাঘ ১৪২৫, মঙ্গলবার

গণমাধ্যমের উন্নয়নে সব ধরনের কাজ করছে সরকার : তথ্যমন্ত্রী

KSRM Advertisement
প্রকাশিতঃ রবিবার, জানুয়ারি ১৩, ২০১৯, ৮:১৩ অপরাহ্ণ

ঢাকা : ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন যেন গণমাধ্যম বিরোধী না হয়, সরকার সেদিকে নজর দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড.হাছান মাহমুদ। সম্প্রচার আইন নিয়ে কাজ চলছে-জানিয়ে তিনি বলেন, গণমাধ্যমের উন্নয়নে সব ধরনের কাজ করছে সরকার।

রোববার(১৩ জানুয়ারি) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে হাছান মাহমুদ আরো বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের কলকাতার চেয়ে বাংলাদেশে গণমাধ্যমের বেশি বিকাশ ঘটেছে। ভুল করলে সরকারের সমালোচনাকে সমাদৃত করার সংস্কৃতি এই সরকার চালু করেছে।

১৯৯৬ সালে দায়িত্বভার গ্রহণের পর প্রধানমন্ত্রী প্রাইভেট টেলিভিশন চ্যানেলের অনুমোদন দিয়েছেন। বর্তমানে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের সংখ্যা ৪৪টি এবং অন-এয়ারে রয়েছে ৩০টি। অনলাইন গণমাধ্যম এবং সোশ্যাল মিডিয়ার বিকাশ ঘটেছে এই সরকারের সময়ে।জাতীয় জীবনে স্বপ্ন থাকতে হয়। রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বে থাকলে সমালোচনা হবে। অন্ধ এবং একপেশে সমালোচনা কল্যাণকর হয় না। সমালোচনাকে সমাদৃত করার সংস্কৃতি শেখ হাসিনা চালু করেছেন। বাংলাদেশের ‘গণমাধ্যম উত্তম সমাজ গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে’।

হাছান মাহমুদ বলেন, বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ৮ কোটি, সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহারকারী ৯ কোটি এবং মোবাইল ব্যবহারকারী রয়েছে ১৪ কোটি। আওয়ামী লীগ সরকারের সময়েই এই বৈপ্লবিক পরিবর্তন হয়েছে। কেউ স্বীকার করুক আর না করুক শেখ হাসিনার হাত ধরেই এই অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। বাংলাদেশ এখন মধ্যম আয়ের দেশ। বাংলাদেশ এখন নিউক্লিয়ার এবং স্যাটেলাইট ক্লাবের সদস্য।

হাছান মাহমুদ আরো বলেন, ১৭ কোটি মানুষের দেশ বাংলাদেশ বর্তমানে খাদ্য উদ্বৃত্তের দেশ। অথচ, সাড়ে ৪ কোটি মানুষ যখন ছিল, তখনই বাংলাদেশে খাদ্য ঘাটতি শুরু হয়েছিল। এই সবকিছু সফল হয়েছে শেখ হাসিনার জাদুকরি নেতৃত্বের ফলে। এ উন্নয়নকে ব্যাহত করতে একটি পক্ষ পেছন থেকে টেনে ধরার চেষ্টা করছে।

জামায়াতের সঙ্গে একই প্রতীকে নির্বাচন করার মধ্য দিয়ে যে ভুল করেছিলেন, তা স্বীকার করায় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক কামাল হোসেনকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন হাছান মাহমুদ। গণতন্ত্রকে সংহত করার জন্য, গণতন্ত্রের অভিযাত্রাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিত সদস্যদের সংসদে যোগ দেয়ার আহবান জানান তিনি।

একুশে/আরসি/এসসি