১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৩ ফাল্গুন ১৪২৫, শুক্রবার

বিএনপি-জামায়াত ঐক্য আদর্শিক : তথ্যমন্ত্রী

KSRM Advertisement
প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯, ৩:২৮ অপরাহ্ণ


ঢাকা: বিএনপি ও জামায়াতের মধ্যে আদর্শিক ঐক্য রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দফতরে ব্রিফিংয়ে এ মন্তব্য করেন তিনি।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি জামায়াত থেকে আলাদা হয়ে যাচ্ছে গণমাধ্যমে এমন খবর বেরিয়েছে। কিন্তু ভেতরের খবর হলো জামায়াত প্রকৃতপক্ষে বিএনপিকে ছেড়ে চলে যাচ্ছে। অর্থাৎ বিএনপি ছাড়তে চায় না। জামায়াতই ছেড়ে চলে যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘যারা চায়নি বাংলাদেশটা হোক তারা বিএনপির সঙ্গে ঐক্য গড়েছে। শুধু তাই নয়; খালেদা জিয়া আইএসআইর কাছ থেকে অর্থ নিয়েছে। বাংলাদেশে বিএনপির সঙ্গে জামায়াতের ঐক্য। আর বাংলাদেশে জামায়াতের কোনো নেতার বিরুদ্ধে আদালত রায় দিলে পাকিস্তানের পার্লামেন্টে তার প্রতিবাদ হয়। অর্থাৎ তাদের যে ঐক্য সেটা তাদের আদর্শিক ঐক্য। তাই তারা আলাদা হওয়ার কথা বললেও প্রকৃতপক্ষে আলাদা হবে না।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন বিএনপি যদি জামায়াতকে ত্যাগ করতো, ঘোষণা দিয়ে বলতো আমরা ২০ বছর ধরে যুদ্ধাপরাধী জামায়াতের সঙ্গে সংসার করেছি। এটা আমরা ভুল করেছি। আমাদের এখন উপলব্দি হয়েছে, তাই যুদ্ধাপরাধী দল জামায়াতের সঙ্গে আর থাকব না। এ ঘোষণা দিয়ে যদি বিএনপি জামায়াতকে ত্যাগ করে তাহলে অবশ্যই বিএনপিকে আমরা সাধুবাদ জানাব।

‘কিন্তু আমরা দেখলাম আসলে তা নয়; জামায়াতই বিএনপিকে ছেড়ে চলে যাচ্ছে। এখানে বিএনপিকে সাধুবাদ জানানোর কিছু নেই।’ বলেন তথ্যমন্ত্রী।

জামায়াতের সঙ্গে বিচ্ছেদ বিএনপির কৌশল কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘প্রেম যখন খুব গভীর হয় এবং সমাজ থেকে বাধাপ্রাপ্ত হয় তখন প্রেমিক-প্রেমিকা নানা কৌশলের আশ্রয় নেয়। এটা তাদের মধ্যে কৌশলও হতে পারে।’

ডাকসু নির্বাচন প্রসঙ্গে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ডাকসু নির্বাচনে শুরু থেকে হলে হলে ভোটকেন্দ্র ছিল। বিএনপি যেমন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন আবদার করে। তেমনি ছাত্রদলও বিভিন্ন দাবি করছে। ডাকসুর গঠনতন্ত্র অনুযায়ী হলে হলে ভোট চলছে। ডাকসু সৃষ্টির পর থেকে। এবারও গঠনতন্ত্র অনুযায়ী হলে হলে ভোট হবে জানিয়ে তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। অথচ বিএনপির ছাত্র সংগঠন বিএনপির মতো আবদার করছে। এটি ডাকসুর গঠনতন্ত্র পরিপন্থী।