২৩ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৬, সোমবার

চবির শেখ হাসিনা হল খুলে দেয়ার দাবি

প্রকাশিতঃ বুধবার, এপ্রিল ৩, ২০১৯, ৩:১২ অপরাহ্ণ


চবি প্রতিনিধি: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা হল’ খুলে দেয়ার দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে শিক্ষার্থীরা৷

বুধবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের সামনে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পরে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের জারুলতলায় এসে পুনরায় মানববন্ধন করে এবং কেন্দ্রীয় গ্রন্থাঘারের পাশ্বে অবস্থান কর্মসূচী পালন করে।

২০১৫ সালের ৮ অক্টোবর ভিডিও কনফারেন্সর মাধ্যমে হলটি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনের সাড়ে তিন বছর পেরিয়ে গেলেও সেখানে আবাসন ব্যবস্থা চালু হয়নি।

আবাসিক এ হলটিতে শিক্ষার্থীদের অ্যাটাচম্যান্ট দেওয়া হলেও আসন বরাদ্দ দেওয়া হয়নি বলে দাবি শিক্ষার্থীদের।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী আকলিমা আক্তার, উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের সুবর্ণা আক্তার ফাল্গুনি, আইইআর ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী আরিফ শাহরিয়ার এবং নিশাত নাওয়াল রাফা।

এসময় বক্তারা বলেন, প্রায় চার বছর আগে শেখ হাসিনা হলের কাজ শুরু হয়েছে। এটাচমেন্ট পেয়েও থাকা হচ্ছে না আমাদের। বারবার এলোটমেন্ট দেওয়ার তারিখ দিচ্ছে কিন্তু কোনো কার্যকারিতা নেই। অন্য হলে রিফিউজির মতো থাকতে হচ্ছে আমাদের। থাকতে হচ্ছে বড় আপুদের বকাঝকা খেয়ে গণরুমে। কেউবা আবার চড়া দামে থাকতে হচ্ছে কটেজে।

তারা বলেন, কটেজে পর্যাপ্ত পরিমাণ বিদ্যৎ, পানি, ওয়াইফাই ও পড়াশোনার পরিবেশ নেই। তাই সেখানে থাকা খুবই কষ্টকর। আমরা প্রশাসনের কাছে শরণাপন্ন হলে তখন উনারা বলেন তোমাদেরকে যে হলে থাকতে দিয়েছি তাও অনেক বেশি।

তারা আরও বলেন, হলে শিক্ষার্থীদের বরাদ্দ না দিয়েই প্রভোস্ট, আাবসিক শিক্ষকরা তাঁদের যাবতীয় অফিস কক্ষ ও প্রশাসনিক সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করছেন।

মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশের পরে চবি উপাচার্যের সম্মেলন কক্ষে শিক্ষার্থীদের সাথে মতবিনিময়কালে চবি উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দীন চৌধুরী বলেন, আগামী রোববার থেকে সিট বরাদ্দের ফরম বিতরণ ও বৃহস্পতিবারের মধ্যে হলের যে অংশে কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে সেই অংশে সিট বরাদ্দ দেয়ার কাজ শুরুর চেষ্টা চলছে। তিনি বলেন, নিয়ম অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের সিট বরাদ্দ দেয়া হবে।