রবিবার, ৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭

আর কেউ যেন চিকিৎসার অভাবে মারা না যায় : ডাক্তারদের মেয়র নাছির

প্রকাশিতঃ বুধবার, জুন ৩, ২০২০, ১০:০৭ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম : হাঁচি-কাশি, সাধারণ ফ্লু ও শ্বাসকষ্টজনিত রোগে নগরবাসীকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা দিতে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন চট্টগ্রামের সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, অনেক ডাক্তার চেম্বার বন্ধ রাখায় এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঢালাওভাবে হাঁচি-কাশি, জ্বর ও শ্বাসকষ্টজনিত রোগে আক্রান্ত রোগীদের ফিরিয়ে দেয়ায় অনেক রোগী বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে রাস্তাঘাটে মারা যাচ্ছেন।

এ ক্রান্তিলগ্নে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীরাই সবার ভরসাস্থল উল্লেখ করে মেয়র বলেন, নিজের সুরক্ষা নিশ্চিত করে সাহস নিয়ে এসব রোগীদের চিকিৎসা প্রদানে এগিয়ে আসতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের সময় যেভাবে বাঙালিরা নিজের জীবনের পরোয়া না করে দেশমাতৃকার সম্মান রক্ষার্থে ঝাপিয়ে পড়েছিল, ঠিক একইভাবে আজকের করোনা যুদ্ধের ফ্রন্টফাইটার তথা ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মী ভাই-বোনদের দেশের এ ক্রান্তিকালে একই রকমের অনুভূতি ধারণ করে জনগণকে রক্ষায় এগিয়ে আসতে হবে।

ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রতি মেয়র বলেন, একবার ভাবুন তো আপনার মা-বাবা, সন্তান, স্ত্রী বা ভাই-বোন বা পরিবারের অন্য কোন সদস্য যদি করোনা আক্রান্ত হন, আপনি কি বসে থাকতে পারবেন? নিশ্চয়ই পারবেন না। আজকে যারা করোনায় বা সাধারণ ফ্লু তে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসার আশায় দিকভ্রান্ত হয়ে এদিক ওদিক ঘুরে ফিরছে তারা তো আমাদের দেশেরই নাগরিক, আমাদের কারো না কারো ভাই বা বোন, স্বামী বা স্ত্রী, মা বা বাবা। আসুন না, আমরা তাদেরকে আপন করে নিই, তাদের চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করে তুলি।

তিনি বলেন, আমরা যদি অনেক মানুষকে চিকিৎসাবঞ্চিত রাখি, তাদের মাধ্যমে আরো অনেক মানুষ আক্রান্ত হবেন। দেশ এক মহাবিপর্যয়ের মুখোমুখি হবে।

চট্টগ্রামের হাসপাতাল ও ক্লিনিক মালিক এবং ডাক্তার-স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রতি মেয়র নাছির বলেন, আপনারা যে যার যার অবস্থান থেকে করোনার এ মহাবিপর্যয়ে মানবতার সেবায় এগিয়ে আসুন। আপনি নিজে সুরক্ষিত হয়ে চিকিৎসার সুযোগ অবারিত করুন। আপনাদের আন্তরিক সহযোগিতা ছাড়া এ যুদ্ধে জয়লাভ করা কোনভাবেই সম্ভব নয়। আসুন, আমাদের আর কোন ভাই বা বোন যেন চিকিৎসার অভাবে মৃত্যুর কোলে ঢলে না পড়েন সেটা নিশ্চিত করি।