বুধবার, ৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭

সন্ত্রাসী হামলার শিকার পরিবারকে উল্টো মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, জুলাই ১০, ২০২০, ১০:২২ অপরাহ্ণ


লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মৌরশী ভূমি জবর-দখলচেষ্টায় প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসী হামলার শিকার এক নির্যাতিত পরিবারকে উল্টো মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন নির্যাতিত পরিবারের সদস্য আছমা পারভীন মুন্নি (৩০)।

১০ জুলাই (শুক্রবার) দুপুরে লোহাগাড়া উপজেলা সদরের একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। আছমা পারভীন মুন্নি লোহাগাড়া উপজেলা সদর ইউনিয়নের রশিদের পাড়ার মৃত আব্দুল গণি মাস্টারের মেয়ে। এসময় নির্যাতিত পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে আছমা পারভীন মুন্নি জানান, লোহাগাড়া উপজেলা সদর ইউনিয়নের ৩ নাম্বার ওয়ার্ডের রশিদের পাড়ায় আমাদের বসতভিটা। তৎসংলগ্ন মৌরশী ভূমি আদালতে নিষেধাজ্ঞা থাকার পরও তা অমান্য করে বার বার জবর-দখল করার পাঁয়তারা চালিয়ে আসছিলেন প্রতিপক্ষরা।

এ লক্ষ্যে প্রতিপক্ষরা আমাকে ও আমার পরিবারের অন্য সদস্যদের প্রাণে হত্যা করবে মর্মে প্রকাশ্যে হুমকি-ধমকি দিলে আমি এ ব্যাপারে হুমকিদাতা সাইদুল আলম, জহিরুল আলম, দিদারুল আলম রাসেল ও আব্দুল নুর তুষারসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে লোহাগাড়া থানায় একটি জিডি ডায়েরি (নং-২২৭, তারিখ- ০৬/০৭/২০) করি।

জিডির বিষয়টি জানতে পেরে প্রতিপক্ষরা তড়িঘড়ি করে গত ৭ জুলাই সকালে ভূঁয়া, ভিত্তিহীন ও মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে আমাদের বিরুদ্ধে একটি সাংবাদিক সম্মেলন আয়োজন করেন। এরপর একইদিন বিকেলে বাড়ি যাওয়ার পথে আমার ওপর আক্রমণ করেন প্রতিপক্ষরা। আক্রমণের বিষয়টি আমি থানা পুলিশকে জানালে তারা আরও বেশি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। সর্বশেষ গত ৮ জুলাই সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে আমাদের বসতভিটার টিনের ঘেরা-বেড়া ও পাকা পিলার ভাংচুর করে। এরপর আমাদের জায়গায় ইট, বালি ও সিমেন্ট স্তুপ করে জোরপূর্বক বাড়ি নির্মাণ কাজ করতে থাকে।

এসময় আমার বড়বোন শাহেদা বেগম কুসুম গিয়ে বাঁধা দিলে প্রতিপক্ষরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মারাত্মক জখম করে। বড়বোনের আত্নচিৎকারে আমি প্রতিপক্ষের হাত থেকে তাঁকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে আমাকেও মারাত্নকভাবে আঘাত করে তারা। প্রতিপক্ষরা তার মোবাইল ফোন ও নগদ ১০ হাজার টাকা নিয়ে যায় বলে দাবি করেন মুন্নী। এছাড়াও বসতভিটার ৪০ হাজার টাকার ঘেরা-বেড়া ভাংচুরসহ ৬০ হাজার টাকার ক্ষতি সাধন করার সংবাদ সম্মেলনে জানান তিনি।।

তাদের ওপর হামলা করে প্রতিপক্ষরা উল্টো তাদের বিরুদ্ধে থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের করে বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়। এ পরিস্থিতিতে তাদের সামনে নিরাপত্তাহীন এক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে বলেও উল্লেখ করা হয় সংবাদ সম্মেলনে।