মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৭ আশ্বিন ১৪২৭

যুদ্ধবিরতি শেষ হতেই আফগানিস্তানে আইএসের হামলা, নিহত ২৯, আহত অর্ধশতাধিক

প্রকাশিতঃ সোমবার, আগস্ট ৩, ২০২০, ২:২৪ অপরাহ্ণ


আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পূর্ব আফগানিস্তানের জালালাবাদের একটি কারাগার প্রাঙ্গণে জঙ্গীদের হামলায় অন্তত ২৯ জন নিহত ও অর্ধশত আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। হতাহতদের মধ্যে বন্দি এবং সাধারণ নাগরিক রয়েছে বলে জানিয়েছে আল জাজিরা। সংবাদ মাধ্যমটি জানিয়েছে, এ ঘটনায় এখনো আফগানিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে আইএসের গোলাগুলি চলছে।

শান্তি চুক্তির অংশ হিসেবে ঈদুল আযহায় তালিবানদের সাথে তিনদিনের যুদ্ধবিরতি শেষ হতে না হতেই এই হামলার ঘটনা ঘটেছে দেশটিতে। যদিও তালিবানরা এই হামলার সাথে জড়িত নয় বলে দাবী করেছে।

নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, রবিবার পূর্ব আফগানিস্তানের একটি প্রধান কারাগারে জঙ্গিরা একটি গাড়িতে আত্মঘাতি বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। পরপর তিনটি বোমা বিস্ফোরণের পর জঙ্গীরা কারগার প্রহরীদের সাথে বন্দুক যুদ্ধে লিপ্ত হয়। আফগান কর্মকর্তারা বলেছেন যে হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

ঘটনার পরপরই আফগান পুলিশ এবং বিশেষ বাহিনী ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হয় এবং জঙ্গীদের সাথে শুরু হয় ঘন্টাব্যাপী বন্দুক যুদ্ধ। রবিবার থেকে শুরু হওয়া এই যুদ্ধ সোমবার সকালেও চলতে থাকে বলে জানায় নিউইয়র্ক টাইমস।

আল জাজিরা জানিয়েছে, গোলাগুলির সুযোগে অনেক বন্দি কারাগার থেকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে। নানগারহার পুলিশের মুখপাত্র তারেক আজিজ এএফপি সংবাদ সংস্থাকে বলেন, প্রায় ১০০ জন কারাবন্দী পালানোর চেষ্টা করলেও তাদের অনেকেই নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে ধরা পড়ে শেষমেশ। কিন্তু নানগারহার প্রাদেশিক কাউন্সিলের প্রধান আহমেদ আলী হাজারাত এএফপিকে বলেন যে ব্যাপক সংখ্যাক বন্দি পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে।

আল জাজিরায় এ নিয়ে কথা বলেন কাবুলের একজন ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক বিলাল সারওয়ারি। তিনি বলেছেন, একজন কারাবন্দী তাকে বলেছে যে বেশ কয়েকজন বন্দীও আহত হয়েছে। “বেশ কিছু নিরাপত্তা টাওয়ার জঙ্গিদের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হচ্ছিল এবং এটা এখনো পরিষ্কার নয় যে কিভাবে দলটি জালালাবাদের কেন্দ্রস্থলে এত অস্ত্র এবং গোলাবারুদ মজুদ করতে পেরেছে। ”

আল জাজিরা সূ্ত্রে জানা গেছে, তালেবানের একজন মুখপাত্র টুইটারে বলেন যে তারা এই হামলার সাথে কোনভাবেই জড়িত নয়।

আফগান গোয়েন্দা সংস্থা জানিয়েছে, নানগারহার প্রদেশের রাজধানী জালালাবাদের কাছে আফগান বিশেষ বাহিনীর হাতে একজন সিনিয়র আইএসআইএল কমান্ডার নিহত হওয়ার জেরে এই হামলা চালানো হয়েছে।

এদিকে আফগান কারাগার থেকে ঈদে তিন শতাধিক বিদ্রোহী তালিবান যোদ্ধাদের মুক্তি দেয়ার পর এই ঘটনা আফগানিস্তানে দীর্ঘ যুদ্ধ অবসানের প্রচেষ্টাকে নতুন করে অনিশ্চয়তায় ফেলেছে।