বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৮ আশ্বিন ১৪২৭

কাশ্মীরে হচ্ছে বিশ্বের সর্বোচ্চ রেলসেতু, ট্রেনেই যাওয়া যাবে ভূস্বর্গে

প্রকাশিতঃ সোমবার, আগস্ট ৩, ২০২০, ৭:১২ অপরাহ্ণ


আন্তর্জাতিক ডেস্ক : এতদিন ভারতের মূল ভূখন্ড থেকে রেলপথে বিচ্ছিন্ন ছিল পৃথিবীর ভূস্বর্গ কাশ্মীর। তবে ভারত তাদের জম্মু-কাশ্মীরের চিনাব নদীর ওপর বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু রেল সেতু নির্মাণ করে সেই যোগাযোগ প্রতিবন্ধকতা দূর করতে যাচ্ছে।

রোববার দেশটির কর্মকর্তারা বলেছেন, নির্মিত হলে এটিই হবে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু সেতু যার কাজ শেষ হবে ২০২১ সালে। তবে পরিকল্পনা অনুযায়ী, ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে কাশ্মীর ভারতে ট্রেন যোগাযোগের সঙ্গে সংযুক্ত হবে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, এটির কেন্দ্রীয় স্প্যান রয়েছে ৪৬৭ মিটারের; যা চিনাব নদীর তলদেশ থেকে ৩৫৯ মিটার উচ্চতায় নির্মিত হচ্ছে। এতে ৫ হাজার ৪৬২ টন স্টিল ব্যবহার করা হবে যা প্রতি ঘণ্টায় ২৬০ কিলোমিটার বেগে বাতাসের গতি সহ্য করতে পারবে।

ভারত সরকারে দাবী, দিল্লির বিখ্যাত কুতুব মিনারের উচ্চতা ৭২ মিটার এবং প্যারিসের আইফেল টাওয়ারের উচ্চতার (৩২৪ মিটার) চেয়েও ৩৫ মিটার বেশি উঁচু হবে কাশ্মীরের এই সেতু।

২০২২ সালের শেষে কাশ্মীরের সাথে ট্রেন যোগাযোগের সংযুক্ত করতে উধমাপুর-কাটরা (২৫ কিলোমিটার), বানিহাল-কাজিগুন্দ (১৮ কিলোমিটার) এবং কাজিগুন্দ-বারামুল্লা (১১৮ কিলোমিটার) সেকশনকে সেতুর সঙ্গে সংযুক্ত করার কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। অবশিষ্ট ১১১ কিলোমিটারের কাটরা-বানিহাল সেকশনের কাজ সম্পন্ন করার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। সেতুটির কাটরা-বানিহাল সেকশনের ১৭৪ কিলোমিটার টানেলের মধ্যে ইতোমধ্যে ১২৬ কিলোমিটারের নির্মাণ কাজও শেষ হয়েছে।

এর আগে সেতুটির বিষয়ে কোঙ্কন রেলওয়ের চেয়ারম্যান সঞ্জয় গুপ্ত জানিয়েছিলেন, সেতুটির নির্মাণ কাজ হচ্ছে স্বাধীনতা পরবর্তী ইতিহাসে ভারতের রেলের সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং প্রকল্প। এটি শেষ হলে একে ভারতে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের একটি দুরন্ত কাজ বলে ইতিহাস লিখবে। তিনি বলেন, সেতুটির নির্মাণকাজ গত এক বছরে কেন্দ্রীয় সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে ত্বরান্বিত করা হয়েছে।