শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮

বড়দের মারামারিতে মাথা ফাটল ছোট্ট শিশুর

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, মার্চ ৪, ২০২১, ১০:১১ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বিছানায় যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে ফুলের মতো সুন্দর শিশুটি। বড়দের মারামারিতে গুরুতর আহত নিষ্পাপ শিশুটির মর্মভেদী কান্না থামানো যাচ্ছে না। চমেকের নিউরো সার্জারি বিভাগের একটি শয্যায় দুই মাস বয়সী শিশু উম্মে হাবিবার মাথার পাশে বসে মা লালু ঝর্ণা কাঁদছেন।

গতকাল বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত শিশুটি অজ্ঞান। কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের পুরিত্যাখালী এলাকায় বড়দের মারামারিতে ইটের আঘাতে শিশুটিও আহত হয়েছে। তার মাথা ফেটে গেছে।

শিশুটির মা লালু ঝর্ণা জানান, পুরিত্যাখালী এলাকায় শাহনা বেগম নামের এক নারী বসতঘর নির্মাণ করতে গেলে কোনাখালী এলাকার একদল সন্ত্রাসীরা চাঁদা দাবি করে। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় এলাকার লোকজন চাঁদাবাজদের প্রতিহত করে। রাত ১১টার দিকে ওই সন্ত্রাসীরা স্থানীয় কোনখালী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান দিদারের নেতৃত্বে শতাধিক লোক এসে ওই এলাকার বেশকিছু বাড়ি-ঘরে হামলা করে।

এসময় তাঁর দুই মাস বয়সের শিশু উম্মে হাবিবার মাথায় পাথরের আঘাত লাগে। সাথে সাথে শিশুটি জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। রাত সাড়ে ১১টার দিকে শিশুটিকে চকরিয়া সরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ ঘটনায় আহত শিশুটির বাবা মোহাম্মদ রুবেল জানান, তারা ঘরে ঘুমাচ্ছিলেন। হঠাৎ করে বৃষ্টির মতো ইট-পাটকেল আসতে থাকে তার ঘরের দিকে। এসে রুবেল ও তার শিশুটি মারাত্মকভাবে আহত হয়। এরপর থেকেই সে চোখ খুলছে না। সারা শব্দ নেই।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. হামিদ হাসান জানান, শিশুটির মাথায় আঘাত লেগেছে। তার অবস্থা সংকটাপন্ন। ২৪ ঘন্টা না গেলে কিছুই বলা যাচ্ছে না।

পুরিত্যাখালী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লায়েক উদ্দিন জানান, সন্ত্রাসীরা কোনাখালী থেকে এসে পুরিত্যাখালীতে এসে হামলা চালায়। দিদার চেয়ারম্যান হামলায় নেতৃত্ব দেন।

আহত শিশু উম্মে হাবিবার পিতা রুবেল জানান, চকরিয়া থানায় এ ঘটনায় তিনি মামলা দায়েরের প্রস্ততি নিচ্ছেন।