শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮

চট্টগ্রামে ডিজিএফআই কর্মকর্তা নিহতের ঘটনায় চালক গ্রেপ্তার

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৮, ২০২১, ৬:০৫ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম নগরীতে প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা মহাপরিদফতরের (ডিজিএফআই) কর্মকর্তা মিনহাজুল ইসলামকে (৪৫) ধাক্কা দেওয়া কাভার্ডভ্যানের চালককে গ্রেপ্তার করে আজ ময়মনসিংহের আদালতে তোলা হয়েছে।

গ্রেপ্তার মো. শহিদুল (২৭) সিরাজগঞ্জ সদর থানার রানী গ্রাম এলাকার রমজান আলীর ছেলে। তিনি ওসমান লজেষ্টিক নামের একটি কাভার্ডভ্যানের চালক ছিলেন।

এর আগে ৪ এপ্রিল বেলা ১২টার দিকে নগরীর বন্দর থানার সল্টগোলা মোড়ে চট্টগ্রাম বন্দরের ২ নম্বর জেটিগেটের সামনে মোটরসাইকেল আরোহী ডিজিএফআই কর্মকর্তা মিনহাজুল ইসলামকে ধাক্কা দেয় পতেঙ্গার দিক থেকে আসা বেপরোয়া গতির একটি কাভার্ডভ্যান।

এরপর দুর্ঘটনার জন্য দায়ী শহিদুল কাভার্ডভ্যান নিয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে মিনহাজুলকে গুরুতর আহত অবস্থায় নৌবাহিনী হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক ‍মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে দুর্ঘটনার পর বন্দর থানার ওসি তথ্য দেন, জেটিগেটে আরও কয়েকটি মোটর সাইকেলকে অতিক্রম করতে গিয়ে রাস্তার পাশে থাকা বালির স্তূপে লেগে মিনহাজুলের মোটরসাইকেল পিছলে পড়ে যায়। এতে তিনি মারা যান।

তবে পরবর্তীতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তদন্তে উঠে আসে, বেপরোয়া গতির একটি কাভার্ডভ্যান ডিজিএফআই কর্মকর্তাকে ধাক্কা দিয়েছিল। এরপর ওই গাড়ির চালক শহিদুলকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযানে নামে তারা।

একপর্যায়ে ময়মনসিংহের কোতোয়ালী থানা এলাকা থেকে শহিদুলকে ধরার পর ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ বৃহস্পতিবার তাকে ময়মনসিংহ অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে পুলিশ। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয় আদালত।

শহিদুলকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি ময়মনসিংহের পুলিশ চট্টগ্রাম নগরের বন্দর থানার পুলিশকে অবহিত করে। এরপর আজ বৃহস্পতিবার বন্দর থানার এসআই আব্দুল্লাহ আল নোমান চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আদালতে শহিদুলকে শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানোর আবেদন জানান। এ বিষয়ে শুনানির জন্য ১৫ এপ্রিল দিন রেখেছেন আদালত।

নৌবাহিনী থেকে আসা মিনহাজুল ইসলাম ডিজিএফআইয়ের চিফ পেটি অফিসার পদে ছিলেন। তিনি ওই সংস্থার চট্টগ্রাম কার্যালয়ের বন্দর ডেস্কে কর্মরত ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি নওগাঁ জেলার আত্রাই উপজেলার রাণীনগর গ্রামে।