শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৫ আষাঢ় ১৪২৮

আনোয়ারায় কে এই ভুয়া এসিল্যান্ড?

প্রকাশিতঃ বুধবার, মে ১২, ২০২১, ৭:২২ অপরাহ্ণ


আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার এসিল্যান্ড (সহকারি কমিশনার-ভূমি) পরিচয়ে উপজেলা বটতলী ইউনিয়নের কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চাঁদাবাজির চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার বটতলী ইউনিয়ন সচিব মো. সাইফুল ইসলাম একুশে পত্রিকাকে বলেন, ‘আজকে সকালে এসিল্যান্ড পরিচয় দিয়ে ০১৬১০-৫৬৯৮০৫ এই নাম্বার থেকে আমার মুঠোফোনে ফোন করে এক ব্যক্তি জানতে চায়, আমার এলাকায় মিষ্টির বড় দোকান আছে কিনা? পরে আমি চৌকিদারের কাছ থেকে জেনে বলেছি, আছে দুইটা।’

‘পরে এসিল্যান্ড পরিচয় দেয়া ওই লোক বলে, ‘চৌকিদারকে ফোন দেন। এরপর চৌকিদারকে ফোন ধরিয়ে দিলে তাকে মিষ্টির দোকানে গিয়ে কথা বলিয়ে দেওয়ার জন্য বলেন। পরে চৌকিদার গিয়ে বনফুলের স্বত্ত্বাধিকারি মো. ফারুকুল ইসলামের সাথে কথা বলিয়ে দেয় এবং চলে আসে। কিছুক্ষণ পর বনফুলের একজন কর্মচারী এসে আমাকে বলে, আপনি এসিল্যান্ডের যে নাম্বারটা দিয়েছেন সেটাতে নাকি ৭০ হাজার টাকা পাঠাতাম।’

ইউনিয়ন সচিব মো. সাইফুল ইসলাম আরও বলেন, ‘তখন বিষয়টি আমি ইউএনও স্যারকে অবগত করি। তখন ইউএনও স্যার আমাকে বলেন এটা প্রতারকদের কাজ। আপনি পরিচিত সবাইকে জানিয়ে দিন, যাতে কেউ কোন ধরনের লেনদেন না করে।’

এই বিষয়ে বনফুল মিষ্টির দোকানের স্বত্ত্বাধিকারি ফারুকুল ইসলাম বলেন, ‘ইউনিয়ন পরিষদের একজন চৌকিদার এসে আমাকে বলেন, আপনার সঙ্গে এসিল্যান্ড কথা বলবেন। তখন আমি ফোন নিয়ে কথা বললে এসিল্যান্ড পরিচয় দিয়ে ওই ব্যক্তি আমার দোকানের নাম ও নাম্বার নেন। চৌকিদার যাওয়ার কিছুক্ষণ পর আমার নাম্বারে ওই ব্যক্তি (ভুয়া এসিল্যান্ড) ফোন দেয় এবং আমাকে বলে ডিসি মহোদয়ের নির্দেশে আমরা আনোয়ারায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করব। আপনার দোকানের নামও আমাদের তালিকায় আছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা আপনার দোকানের নাম তালিকা থেকে বাদ দিব যদি আপনি (০১৬১০-৫৬৯৮০৫) এ নাম্বারে ৭০ হাজার টাকা পাঠান। আমি দোকানে এসে টাকা নেওয়ার অনুরোধ জানালে, তিনি বলেন দোকানে কিংবা আমার অফিসে টাকা দেওয়া যাবে না, বিকাশে দিতে হবে। পরে বিষয়টি আমি ইউএনও মহোদয়কে জানালে তিনি ঘটনাটি প্রতারকদের কাজ বলে জানান। তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস ও এ ধরনের প্রতারক চক্রের ফাঁদে না পড়তে পরামর্শ দেন।’

অনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ জুবায়ের আহমদ বলেন, ‘এর আগেও এরকম আরেকটি অভিযোগ পেয়েছি। এখন পুলিশকে ওই প্রতারকের মোবাইল নাম্বার দিয়ে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। বিষয়টি তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘প্রতারকের এ ধরনের অপকৌশলের কথা বেশি বেশি প্রচার হওয়া উচিত। তাহলে মানুষ এসব প্রতারণা থেকে রক্ষা পাবে।’