শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৫ আষাঢ় ১৪২৮

‘কাউন্সিলর লিটনের টাকায় মেয়রের সংসার চলে!’

প্রকাশিতঃ বুধবার, মে ১২, ২০২১, ৯:৫৮ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম : একুশে পত্রিকার অফিসে চট্টগ্রাম নগরের ২৫ নং রামপুর ওয়ার্ডের কমিশনার আব্দুস সবুর লিটনের নামে ডাকযোগে চিঠি পাঠিয়ে মানহানির মামলা করার হুমকি দেওয়া হয়েছে।

গত ৪ মে চট্টগ্রাম জিপিও থেকে পোস্ট করা চিঠিটি গতকাল মঙ্গলবার নগরের জামালখান সড়কে একুশে পত্রিকা কার্যালয়ে এসে পৌঁছায়।

খামে প্রেরকের স্থানে প্রথমে আব্দুস সবুর লিটন, কাউন্সিলর, ২৫ নং রামপুর ওয়ার্ড লেখা হলেও পরে তা কেটে সেখানে প্রেরক হিসেবে লেখা হয় জনৈক আলী হোসেন মজুমদারের নাম। আর ঠিকানা দেওয়া হয় ২৯ লালখানবাজার, চট্টগ্রাম।

যদিও কাউন্সিলর লিটন দাবি করেছেন, তিনি ওই চিঠি পাঠাননি। এটি মিথ্যা ও বানোয়াট।

একুশে পত্রিকার সম্পাদক বরাবর লেখা ওই চিঠির শুরুতে লেখা হয়, “সম্পাদক সাহেব আমার সালাম নিবেন। পত্রিকা প্রকাশ করার আগে পত্রিকা কিভাবে চালাতে হয় শিখবেন এবং ভালো রিপোর্টার রাখবেন তাহলে পত্রিকা চলবে কিন্তু আপনি যদি রাস্তার রিপোর্টার দিয়ে সংবাদ সংগ্রহ করে পত্রিকা চালান তাহলে আমি মনে করি আপনি অযোগ্য এবং চাঁদাবাজ সাংবাদিক।”

এতে আরও লেখা হয়েছে, “আমি আব্দুস সবুর লিটন আওয়ামী লীগ চট্টগ্রাম মহানগর এর প্রতিষ্ঠাতা এবিএম মহিউদ্দীন চৌধুরীর আদর্শের সন্তান এবং বর্তমান সময়ের আলোচিত তারুণ্যের প্রতীক্ষা (সম্ভবত প্রতীক লিখতে চেয়েছেন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন, সিংহশাবক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এর আস্থাভাজন জনপ্রতিনিধি, এছাড়া কাউন্সিলরদের প্রত্যেক (প্রত্যক্ষ) ভোটে নির্বাচিত প্যানেল মেয়র-১, আমাকে আপনারা দমিয়ে রাখতে পারবেন না।”

চিঠিতে আরও বলা হয়, “আগামীর মহানগর আওয়ামীলীগ নেতৃত্ব আমার ইনশাআল্লাহ। আ জ ম নাসির ও অন্য নেতার অনুসারিরা তারা অস্তমিত সূর্য অতএব আমার বিরুদ্ধে আপনার রিপোর্টার লাগিয়ে কোন লাভ হবে না বরং আপনার কত টাকা লাগবে আমাকে বলেন আমি পাঠিয়ে দেব। আমার টাকায় বর্তমান মেয়র সাহেব তার সংসার চালায়।”

“যদি আমার বিরুদ্ধে অসত্য সংবাদ পরিবেশন করেন তাহলে প্রধানমন্ত্রী এবং ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল সাহেবের নির্দেশ আছে আপনার বিরুদ্ধে মানহানি মামলা করার। অতএব আপনার প্রতি আমার অনুরোধ উল্টা পথে না হেঁটে সোজা পথে সমঝোতা করে চলেন। তাহলে আপনার অনেক লাভ হবে। মনে রাখবেন আগামী চট্টগ্রাম হবে আমার নেতা ব্যারিস্টার নওফেল সাহেবের অতএব সাধু সাবধান।”

এরপর “নিবেদনে, আব্দুস সবুর লিটন, ২৫ নং রামপুর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-১।” লিখে চিঠি শেষ করা হয়েছে।

এদিকে ডাকযোগে আসা এই চিঠির বিষয়ে জানতে চাইলে কাউন্সিলর আব্দুস সবুর লিটন একুশে পত্রিকাকে বলেন, ‘এটা মিথ্যা। এই ধরনের চিঠি লেখার প্রশ্নই আসে না। আমার ব্যাপারে আপনারা একটা নিউজ করেছিলেন, এজন্য এটা কেউ হয়তো করতে পারে।’

এই কাজটি কারা করতে পারে- প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘এটা আসলে আমার জানা নেই। আমি অনুমানের উপর ভিত্তি করে কাকে বলবো। বাংলাদেশে ১৭-১৮ কোটি লোক আছে। চট্টগ্রাম শহরে ৫০-৬০ লাখ লোক আছে। আমি কার কথা বলবো।’

‘একুশে পত্রিকায় এটা দিয়ে আমার লাভটা কী হবে? কোন লাভ আছে? এটা মিথ্যা।’ -বলেন প্যানেল মেয়র আব্দুস সবুর লিটন।