বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৮ আশ্বিন ১৪২৮

সীতাকুণ্ডে ট্রাকচালক হত্যায় ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার, গ্রেপ্তার আরও ৩

প্রকাশিতঃ রবিবার, জুলাই ২৫, ২০২১, ৩:৫৩ অপরাহ্ণ


সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি : চট্টগ্রামে সীতাকুণ্ডে গরুবাহী ট্রাকের চালককে গুলি করে হত্যার ঘটনায় ব্যবহৃত অস্ত্রটি উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ। পাশাপাশি ঘটনায় জড়িত লিটন তালুকদার, সাদ্দাম হোসেন বাচা ও তুহিন নামের আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আজ রোববার বায়েজিদ-ফৌজদারহাট লিংক রোডে নির্মাণাধীন একটি রিসোর্টের ভেতর থেকে অস্ত্রটি উদ্ধার করা হয়।

এর আগে গত ১৬ জুলাই ভোররাত চারটার দিকে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের ফৌজদারহাট-বায়েজিদ লিংক রোড এলাকায় চট্টগ্রামের বিবিরহাটমুখী কোরবানির গরু বোঝাই ট্রাকে হানা দেয় ডাকাতদল।

এসময় ডাকাতের উপস্থিতির বিষয়টি আঁচ করতে পেরে ট্রাক চালিয়ে চলে যাওয়ার সময় ডাকাতরা গুলি চালিয়ে ট্রাক চালক আবদুর রহমানকে (৫০) হত্যা করেন। এ ঘটনায় চালকের এক আত্মীয় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার পর নাজিম নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে আদালতের আদেশে ৬ দিনের রিমান্ডে আনে পুলিশ। এরপর নাজিমের জবানবন্দিতে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে লিটন তালুকদার (৪২) নামের একজনকে আজ গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

অন্যদিকে ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সাদ্দাম হোসেন বাচা (৩০) ও তুহিন (২৪) নামের দুইজনকে ধরে আজ রোববার থানায় হস্তান্তর করে র‌্যাব-৭।

এদিকে রিমান্ডে নাজিম স্বীকার করে, হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্রটি সে কিছুদিন আগে লিটন ও তুহিনকে জমা দেয় এবং বিভিন্ন সময় অস্ত্রটি সংগ্রহ করে ব্যবহার করে। পরবর্তীতে লিটন, তুহিন ও নাজিম তিনজনই অস্ত্রটি ব্যবহার করে বিভিন্ন সময়ে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে ব্যবহার করার কথা যৌথভাবে স্বীকার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা পুলিশকে জানায়, হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্রটি একে অপরের সাথে পরামর্শ করে সীতাকুণ্ডের বায়েজিদ-ফৌজদারহাট লিংক রোডের ৪ নং ব্রিজের পশ্চিম পাশে রবিউল-মমতাজদের নির্মাণাধীন রিসোর্টের ভিতরে নির্মিতব্য একটি ভবনের কক্ষে পুরাতন সিমেন্টের ব্যাগ ও শপিং ব্যাগে মুড়িয়ে মাটিতে পুঁতে রাখে।

রোববার সকালে আসামিদের দেয়া তথ্য মতে, ঘটনাস্থলে গিয়ে সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ অস্ত্রটি উদ্ধার করে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সীতাকুণ্ড সার্কেল) আশরাফুল করিম, সীতাকুণ্ড মডেল থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক, ফৌজদারহাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম।

সীতাকুণ্ড মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক একুশে পত্রিকাকে বলেন, চাঞ্চল্যকর এ হতাকাণ্ডের রহস্য খুব অল্প সময়ে উদঘাটন করা হয়েছে। অস্ত্র, মাদক ও সন্ত্রাস নির্মূলে সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ সবসময় জিরো টলারেন্সে রয়েছে।