কুমিল্লার ঘটনায় ৪৩ জন আটক : চট্টগ্রামের ডিআইজি


কুমিল্লা : কুমিল্লার ঘটনায় পুলিশ ৪৩ জনকে আটক করেছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন।

বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান তিনি।

চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন বলেন, ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে। আগামী তিন দিনের মধ্যে কমিটিকে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, কুমিল্লার ঘটনাটি অবশ্যই উসকানিমূলক। পূজামণ্ডপে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির ঘটনায় ৪৩ জনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ভিডিও ধারণকারী ফয়েজ উদ্দিন নামে এক ব্যক্তিকেও আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

এ ঘটনায় তিনটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান ডিআইজি আনোয়ার হোসেন।

তিনি আরও বলেন, ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছড়িয়ে দেওয়া ভিডিও দেখলে বোঝা যায় স্পষ্ট উদ্দেশ্য নিয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। আর বিশেষভাবে ঘটনাস্থল থেকে যে লোক ভিডিও করে ছড়িয়ে দিয়েছেন তাকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সে কোন দলের সমর্থক তাও যাচাই করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এদিকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিতে সদস্যরা হলেন- অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সায়েদুল আরেফিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) এম তানভীর আহমেদ ও কুমিল্লা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জাকিয়া আফরিন।

জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান বলেন, গঠিত কমিটি বিষয়টি তদন্ত করে বৃহস্পতিবার থেকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবেন।

বুধবার কুমিল্লার একটি পূজামণ্ডপে কোরআন অবমাননার অভিযোগে দুর্গাপূজার মণ্ডপ ঘিরে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এর পরপরই একদল লোক বেশ কিছু পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা চালায়। তাৎক্ষণিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ারশেল ও ফাঁকা গুলি ছুড়ে। এরপরেই জেলা প্রশাসনের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে দেশব্যাপী বিভিন্ন জেলায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়।

এদিকে দুপুরে নানুয়ার দীঘির উত্তরপাড় পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেছেন জাতীয় সংসদের হুইপ ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন। তিনি বলেন, যুগের পর যুগ ধরে এই দেশে বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী মানুষ তাদের নিজস্ব ধর্ম স্বাধীনভাবে পালন করছেন। হঠাৎ করে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করে দেশবিরোধী চক্রান্ত বাস্তবায়নে একটি নির্দিষ্ট পক্ষ ষড়যন্ত্র করছে। ইতোমধ্যে এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহভাজনদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তিনি দেশবাসীর প্রতি অনুরোধ জানিয়ে বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশে সব মানুষ স্বাধীনভাবে ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান পালন করবেন। সবাই ধৈর্য্য ও সহনশীলতার সঙ্গে বর্তমান পরিস্থিতি মোকাবেলা করবেন।