‘ওমিক্রন’ শনাক্ত দেশ থেকে এলে কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক


ঢাকা : করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’ ইতিমধ্যে যেসব দেশে শনাক্ত হয়েছে সেই দেশগুলো থেকে কেউ বাংলাদেশে এলে তার জন্য ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

মঙ্গলবার দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে মন্ত্রী এই কথা জানান।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে ১৮টি মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা যোগ দেন। সেখানে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন সংক্রমণ প্রতিরোধে করণীয় নিয়ে আলোচনা হয়।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মন্ত্রী বলেন, ডেল্টার চেয়েও বেশি ঝুঁকিপূর্ণ করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন। ওমিক্রনের সংক্রমণ রোধে সরকার সতর্ক অবস্থানে আছে। তবে দুঃখের বিষয় গত এক মাসে ২৪০ জন আফ্রিকা থেকে এসেছেন। এখন তাদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তাদের ফোনও বন্ধ।

সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনাভাইরাসের নতুন একটি ধরন শনাক্ত হয়েছে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা যার নাম দিয়েছে ‘ওমিক্রন’। ভাইরাসটি ইতিমধ্যে বিশ্বের ১৩টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে আতঙ্ক ও উদ্বেগ দেখা দিয়েছে গোটা বিশ্বে।

যে ১৩টি দেশে ওমিক্রন ছড়িয়েছে সেগুলো হলো, দক্ষিণ আফ্রিকা, বতসোয়ানা, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, ডেনমার্ক, বেলজিয়াম, ইসরায়েল, ইতালি, চেক প্রজাতন্ত্র, হংকং, অস্ট্রেলিয়া ও কানাডা।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, এসব দেশ থেকে কেউ বাংলাদেশে এলে তাকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে। তিনি বলেন, আফ্রিকা মহাদেশ থেকে আসতে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। যদি আসে তাহলে ১৪ দিনের কঠোর কোয়ারেন্টাইন অবশ্যই মানতে হবে। কর্তৃপক্ষকে বলবো, বিদেশ থেকে যারা আসবে, তাদের যেন মনিটরিং করা হয়।

বৈঠকে ৬০ বছরের ঊর্ধ্বের নাগরিকদের বুস্টার ডোজ টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আজ আমরা একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ৬০ বছরের বেশি বয়স্কদের বুস্টার ডোজ দেওয়া হবে। এ পর্যন্ত ছয় কোটি লোককে সিঙ্গেল ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। চার কোটি লোক ডাবল ডোজ টিকা পেয়েছে। কমিউনিটি ক্লিনিক পর্যন্ত টিকা কার্যক্রম নিয়ে যাওয়া হয়েছে।’

এ সময় মন্ত্রী জানান, ‘নো মাস্ক নো সার্ভিসের’ মতো ‘নো ভ্যাকসিন নো সার্ভিস’ও চালু হবে।