বুধবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২২, ৬ মাঘ ১৪২৮

বিধিনিষেধ মেনে অর্ধেক আসনে যাত্রী নিয়ে চলছে ট্রেন

প্রকাশিতঃ শনিবার, জানুয়ারি ১৫, ২০২২, ৭:০৯ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম : করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে সরকার ঘোষিত ১১ দফা বিধিনিষেধ কার্যকর হয়েছে গত ১৩ জানুয়ারি থেকে। আর এই বিধিনিষেধ কঠোরভাবে অনুসরণ করছে রেল কর্তৃপক্ষ। আজ শনিবার বিভিন্ন আন্তঃনগর ট্রেন অর্ধেক আসনে যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রাম ছেড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন স্টেশন কর্মকর্তারা।

সূত্রটি জানায়, যাদের মুখে মাস্ক নেই, তাদের কাছে আজ টিকিট বিক্রি করেনি কর্তৃপক্ষ। মাস্ক না থাকায় অনেক টিকিট ক্রেতাকে স্টেশন কাউন্টারের ভেতরে ঢুকতে দেয়া হয়নি। ট্রেনে অর্ধেক আসন ফাঁকা দেখা গেছে।

স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ এসব পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্টেশন ম্যানেজার রতন কুমার চৌধুরী। গত সোমবার করোনাভাইরাসের নতুন ধরন অমিক্রনের সংক্রমণরোধে ১১ বিধিনিষেধ আরোপ করেছে সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এর আগে আজ শনিবার থেকে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল রেল কর্তৃপক্ষ।

স্টেশন কর্মকর্তারা জানান, প্ল্যাটফর্মে ঢোকার সময় যাত্রীর মুখে মাস্ক আছে কিনা তা যাচাই করেন টিটিই’রা। যাদের মুখে মাস্ক ছিল না তাদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

জানা গেছে, আজ সকাল থেকে চট্টগ্রাম ছেড়ে যাওয়া আন্তঃনগর ও লোকাল ট্রেনে আসন ফাঁকা রেখে বসে গন্তব্যে ছুটেন যাত্রীরা।

স্টেশনের ভেতর যাত্রী বসার বেঞ্চগুলোতেও মাঝের আসন ফাঁকা রেখে বসার জন্য স্টিকার লাগিয়েছে কর্তৃপক্ষ।
আজ শনিবার বিকালে ঢাকাগামী যাত্রী লিয়াকত আলী একুশে পত্রিকাকে বলেন, “অর্ধেক আসন ফাঁকা গেলেও ভাড়া বাড়ায়নি রেল কর্তৃপক্ষ।”

আন্তঃনগর ট্রেনে আজ সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম আসা যাত্রী আদিল আকবর জানান, আজ আন্তঃনগরের একটি ট্রেনে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম আসেন তিনি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে কমলাপুর রেলস্টেশন কর্তৃপক্ষ বেশ কড়াকড়ি আরোপ করেছে। তিনি যে ট্রেনে এসেছেন সেটির আসন অর্ধেক ফাঁকা ছিল।

এর আগে আজ দুপুরে পৌনে ১২টায় আন্তঃনগর ট্রেনে চট্টগ্রাম আসেন একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক আকবর আলী শাহ। তিনি বলেন, “ট্রেনটিতে অনেক যাত্রী ছিল। তবে স্বাস্থবিধি মেনেই অধিকাংশ যাত্রী ট্রেনে উঠেছেন। প্রায় সবার মুখে মাস্ক ছিল।’

চট্টগ্রাম রেলস্টেশন ম্যানেজার রতন কুমার চৌধুরী বলেন, “সরকার ঘোষিত ১১ দফা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি ট্রেনে জীবাণুনাশক ছিটানো হচ্ছে। আজ সকাল থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ৬টি আন্তনগর ও ৩টি লোকাল ট্রেন অর্ধেক আসনের যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রাম ছেড়েছে।

সূত্রটি বলছে, ট্রেনের ধারণক্ষমতার অর্ধেক আসনের টিকিট অনলাইন ও কাউন্টার—দুই জায়গায় সমানভাবে বিক্রি অব্যাহত আছে। অর্থাৎ ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হচ্ছে অনলাইনে (অ্যাপ/অনলাইন)। আর বাকি ৫০ শতাংশ টিকিট স্টেশনের কাউন্টারে পাওয়া যাচ্ছে। এর আগে গত সোমবার করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ১১ দফা বিধিনিষেধ আরোপ করে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার।

ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘করোনাভাইরাস জনিত রোগের (কোভিড-১৯) নতুন ধরন ওমিক্রনের প্রাদুর্ভাব ও দেশে এ রোগের সংক্রমণ পরিস্থিতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত সভায় নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থা, অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড সচল রাখা এবং সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ১৩ জানুয়ারি থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সার্বিক কার্যাবলি/চলাচলে বিধিনিষেধ আরোপ করা হলো।’