বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

‘নাগরিক সুবিধা নিশ্চিতে জেলা প্রশাসকদের নজর দিতে হবে’

প্রকাশিতঃ Tuesday, January 18, 2022, 12:15 pm


ঢাকা : গ্রামাঞ্চলের সব নাগরিকের সুবিধা নিশ্চিতে জেলা প্রশাসকদের নজর দিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছে। ফলে নাগরিকদের সুবিধা নিশ্চিতে সবার দায়িত্ব বেড়ে গেছে।

মঙ্গলবার সকালে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) বার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি সকাল ১০টার পর গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে দুই বছর বন্ধ ছিল ডিসিদের বার্ষিক সম্মেলন। কোভিড-১৯-এর নতুন ঢেউয়ের কারণে এই সম্মেলন এবার পাঁচদিন থেকে কমিয়ে তিন দিন করা হয়েছে। অন্যান্য বছর জেলা প্রশাসকদের নিয়ে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সভাকক্ষে এ সম্মেলন হলেও করোনার কারণে এবার জেলা প্রশাসক সম্মেলনের ভেন্যু হয়েছে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বক্তব্যে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী জানান, আওয়ামী লীগের কারণেই বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হতে পেরেছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ টানা ক্ষমতায় থাকার কারণে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ হতে পেরেছে।

এসময় জেলা প্রশাসকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, উন্নয়শীল দেশে মর্যাদা পাওয়ায় দায়িত্ব বেড়ে গেছে। উন্নয়নের জন্য জেলা ভিত্তিক বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে। গ্রামাঞ্চলের সব নাগরিকের সুবিধা নিশ্চিতে জেলা প্রশাসকদের নজর দিতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, মানুষ যেন সরকারি সেবা পায় সে বিষয়ে আপনাদের আরো সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে হবে। এ সময় জেলা প্রশাসকদের ২৪টি নির্দেশনা দেন সরকারপ্রধান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাত্র ১৫টি মন্ত্রণালয়ের ১৫ জন মন্ত্রী ও সচিবকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সন্ধ্যায় ভার্চুয়ালি ভাষণ দেবেন এবং বুধবার জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও প্রধান বিচারপতির ভার্চুয়ালি ভাষণ দেওয়ার কথা রয়েছে।

কোভিড-১৯, ভূমি ব্যবস্থাপনা, আইন প্রয়োগ, স্থানীয় সরকারের কার্যক্রম শক্তিশালীকরণ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, স্থানীয় পর্যায়ে দারিদ্র্য হ্রাস ও কর্মসংস্থান, সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনি কার্যক্রম, আইসিটি ও ই-গভর্নেন্স, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবেশ, ভৌত অবকাঠামো এবং সম্মেলনে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের ওপর গুরুত্ব দেওয়া হবে।