মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ১৪ আষাঢ় ১৪২৯

সীতাকুণ্ডের শিপইয়ার্ডে শ্রমিকের মৃত্যু নিয়ে রহস্য

প্রকাশিতঃ ১৮ মে ২০২২ | ৫:০০ অপরাহ্ন


চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের শীতলপুরস্থ গোল্ডেন আইরন শিপ ব্রেকিং ইয়ার্ডে হাশেম মিয়া (৬০) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র মনজুর আলমের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানটিতে গতকাল মঙ্গলবার (১৭ মে) দুপুরে এ ঘটনা ঘটলেও আজ বুধবার তা জানাজানি হয়।

এদিকে ওই শ্রমিকের মৃত্যুর কারণ নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে। গোল্ডেন আইরন শিপ ব্রেকিং ইয়ার্ডের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ‘হিট স্ট্রোকের কারণে হাশেমের মৃত্যু হয়েছে।’ তবে শিপইয়ার্ডের একাধিক শ্রমিক জানিয়েছেন, জাহাজ থেকে পড়ে হাশেমের মৃত্যু হয়েছে।

অন্যদিকে শ্রমিকের মৃত্যুর ২৪ ঘন্টা পার হলেও এখনো মৃত্যুর কারণ জানা দূরের কথা মৃত্যুর খবরও নিশ্চিত হতে পারেনি কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর।

নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ করে শিপইয়ার্ডের একাধিক শ্রমিক জানান, গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ওই শ্রমিক জাহাজের উপর থেকে পাইপ নিয়ে পড়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। এর আগের দিন গত সোমবার শিপইয়ার্ডে একজন শ্রমিক পায়ে মারাত্মক জখম হন। তার পায়ে অপারেশন হয়েছে। তিনি এখন চট্টগ্রাম মেডিকেলে চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে শ্রমিকের মৃত্যুর বিষয়টি গোপন রাখার অভিযোগ উঠেছে গোল্ডেন আইরন শিপ ব্রেকিং ইয়ার্ডের বিরুদ্ধে; এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক রাজু আহমেদ একুশে পত্রিকাকে বলেন, ‘আমরা কেন মৃত্যুর খবর গোপন করবো? এটি তো আমাদের জন্যই ক্ষতিকর। একজন শ্রমিক গতকাল হিট স্ট্রোক করে মারা গেছেন। আরেকজন এর আগের দিন আহত হয়েছেন। তার পায়ের অপারেশন হয়েছে। বর্তমানে তিনি চমেকে চিকিৎসাধীন আছেন। নিহত হাশেম মিয়া পিটার গ্রুপে কাজ করতেন। প্রচণ্ড গরম পড়ায় তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। তিনি কোনভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হননি।’

একই বিষয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য জানাতে পারেননি কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের উপ-মহাপরিদর্শক আব্দুল্লাহ আল সাকিব মুবাররাত। তিনি একুশে পত্রিকাকে বলেন, ‘আমরা শুনেছি একজন শ্রমিক গতকাল স্ট্রোক করেছেন। মারা গেছেন কি না সেটি আমরা এখনো নিশ্চিত না। আমাদের পরিদর্শক দল ওই কারখানা পরিদর্শন করার পর বিস্তারিত বলতে পারবো’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের পরিদর্শক দলকে বলে দিয়েছি, ওই প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকদের হাজিরা চেক করার জন্য। কেউ অনুপস্থিত আছে কি না জানতে পারলে আমরা নিশ্চিত হতে পারবো। এরপর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’