শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯

ঐকমত্যের সরকার করবেন, কিন্তু নুরু আর তাদের সংগঠনের নাম জানেন না ফখরুল

প্রকাশিতঃ ৫ অগাস্ট ২০২২ | ১:০৬ অপরাহ্ন

একুশে প্রতিবেদক : জাতীয় ঐকমত্যের সরকার গঠন কিংবা একটি রাজনৈতিক মোর্চা গঠনের জন্য সপ্তাহ খানেক ধরে আওয়ামী লীগবিরোধী বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যোগাযোগ করে এক কাতারে আনার চেষ্টা করছেন বিএনপি নেতারা।

এরই অংশ হিসেবে বুধবার (৩ জুলাই) অর্থনীতিবিদ রেজা কিবরিয়া ও ঢাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরুর নেতৃত্বাধীন গণঅধিকার পরিষদের অনুুুষ্ঠানে যোগ দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ বিএনপির তিন নেতা।

সেখানে তারা জাতীয় ঐকমত্যের সরকারে এক সঙ্গে থাকা নিয়ে বক্তৃতা করেন। মজার ব্যাপার হচ্ছে, যাদের সঙ্গে মোর্চা করতে গেছেন তাদের সংগঠন কিংবা নেতার নাম জানেন না মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বক্তব্য দিতে গিয়ে সব গুলিয়ে ফেললেন তিনি।

নুরু বলার বলার পর থেমে যান; জানতে চান পুরো নাম কী যেন! একজন বাতলে দিয়ে বললেন, নুরুল হক নূরু। এরপর নিজেকে শুধরে নিয়ে গণঅধিকার বলে আবারও আটকে যান মির্জা ফখরুল। পাশে দাঁড়ানো রেজা কিবরিয়াকে ছোট করে জিজ্ঞেস করেন, আপনাদের সংগঠনের নাম কী?

রেজা কিবরিয়া বললেন, ‘গণঅধিকার পরিষদ’। এরপর গণঅধিকার পরিষদ উল্লেখ করে বক্তৃতা শুরু করেন তিনি। বলেন, এই ফ্যাসিস্ট, স্বৈরাচার সরকারকে আর ক্ষমতায় থাকতে দেওয়া যায় না। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে এই অবৈধ সরকারকে বিতাড়িত করে ঐক্যমতের সরকার গঠন করতে হবে। তখন পাশে থাকা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী মির্জা ফখরুলকে চুপিসারে বলতে শোনা যায়, ‘সবাইকে নিয়ে ঐক্যমতের সরকার বলুন’।

মির্জা ফখরুলের এমন অবস্থা দেখে উপস্থিত কয়েকজন সমস্বরে বলে উঠেন, যে সংগঠন কিংবা সংগঠনের নেতার নাম জানেন না, তাদের সঙ্গে মোর্চা করবেন, সরকারকে হটিয়ে ঐক্যমতের সরকার করবেন কীভাবে?

নিজেদের অবস্থা এতই দুর্বল যে, অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, ‘অন্ধসমিতির’ খোঁজ পেলে সেখানেও ছুটে গিয়ে শক্তি বাড়ানোর চেষ্টা করবেন বিএনপি নেতারা! আর অন্ধসমিতির নেতাদের নিয়ে সরকার পতনই বা তারা করবেন কীভাবে?