মঙ্গলবার, ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯

ভোটার তালিকা হালনাগাদ: চট্টগ্রামে সাড়ে ৫ লাখ নতুন করে নিবন্ধিত

প্রকাশিতঃ ৩০ নভেম্বর ২০২২ | ১২:৫০ অপরাহ্ন


চট্টগ্রাম : ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে চট্টগ্রামে সাড়ে পাঁচ লাখ লোক নতুন করে নিবন্ধিত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বুধবার (৩০ নভেম্বর) এ তথ্য নিশ্চিত করে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. কামরুল আলম।

তিনি জানান, জেলার বাঁশখালী উপজেলায় সবচেয়ে বেশি ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন। এ উপজেলায় ১৫ শতাংশের বেশি মানুষ নিবন্ধন করেছেন। এরপরই রয়েছে আনোয়ারা, সাতকানিয়া, লোহাগাড়া ও চন্দনাইশ উপজেলা। দক্ষিণ চট্টগ্রামের এসব উপজেলায় ১১-১২ শতাংশ লোক ভোটার তালিকা হালনাগাদে নিবন্ধিত হয়েছেন। অথচ এ অঞ্চলসমূহকে রোহিঙ্গা নাগরিকদের কারণে লাল তালিকাভুক্ত করেছে নির্বাচন কমিশন। অন্যদিকে নগরীর পাঁচলাইশ এলাকায় নিবন্ধিত লোকের সংখ্যা বেশি হলেও কোতোয়ালী ও ডবলমুরিং থানা এলাকায় নিবন্ধনের হার ৫ শতাংশ। যেখানে ইসি নিবন্ধনের পরিকল্পনা করেছে সাড়ে ৭ শতাংশ।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জানান, নির্বাচন কমিশনের তথ্য মতে, চট্টগ্রাম জেলা ও নগরীতে হালনাগাদ কর্মসূচিতে ৫ লাখ ৪২ হাজার ৭৪৪ জন নিবন্ধন করেছেন। এরমধ্যে ১৮ বছর বয়সী ভোটার অন্তর্ভুক্ত ছাড়াও ১৬ ও ১৭ বছর বয়সী নাগরিকদেরও তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। ১৮ বছর পূর্ণ হলেই ভোটার হিসেবে গণ্য হবেন তারা।

মো. কামরুল আলম বলেন, ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে মাঠ পর্যায়ের কাজ শেষ হয়েছে। আগামী বছরের ২ জানুয়ারি হালনাগাদের খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হবে। খসড়া তালিকার ভুল-ত্রুটি ও অসঙ্গতি সংশোধনের পর ২ মার্চ ভোটার দিবসে পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশ করা হবে। এরপর তথ্য যাচাই-বাছাই করে নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে আপলোড করা হবে। কমিশন সেই তথ্য-উপাত্ত পুনরায় যাচাই করে নির্বাচন কমিশনের সার্ভারে অপলোড করবে।

ইসির নিবন্ধিত তালিকা পর্যালোচনা করে দেখা যায়, সবচেয়ে বেশি ১৫ দশমিক ৩৫ শতাংশ নাগরিক নিবন্ধন করেছে বাঁশখালীতে। এরপর রয়েছে সাতকানিয়ায় ১২ দশমিক ৩৯ শতাংশ, আনোয়ারায় ১২ দশমিক ২৫ শতাংশ, চন্দনাইশে ১১ দশমিক ৯৫, রাঙ্গুনিয়ায় ১১ দশমিক ৮২, লোহাগাড়ায় ১১ দশমিক ৫২ ও নগরীর পাঁচলাইশে ১১ দশমিক ৯৪ শতাংশ। সবচেয়ে কম সংখ্যক লোক নিবন্ধন করেছেন নগরীর কোতোয়ালী ও ডবলমুরিংয়ে। কোতোয়ালীতে ৫ দশমিক ৫২, ডবলমুরিংয়ে ৫ দশমিক ৫১ ও পাহাড়তলীতে ৬ দশমিক ১০ শতাংশ মানুষ নিবন্ধন করেছেন।